ঝাঁকে ঝাঁকে ভেসে আসা রকেট থেকে ইসরাইলকে রক্ষা করছে ‘অদৃশ্য বলয়’

নিজস্ব প্রতিবেদন : বর্তমান পরিস্থিতিতে ইসরাইলের সাথে প্যালেস্টাইনের কট্টরপন্থীদের লড়াই এখন বিশ্ব রাজনীতির আলোচ্য বিষয়বস্তু হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এই দ্বন্দ্বের মাঝে অন্যতম আকর্ষণীয় বিষয়বস্তু হল ইজরায়েলের আকাশের ‘অদৃশ্য বলয়’। ইজরায়েলের তেল আভিভ, আশকেলন-সহ একাধিক শহরকে লক্ষ্য করে হামাস ঝাঁকে ঝাঁকে যে রকেট ছুঁড়ছে সেই সকল রকেট মাটিতে আছড়ে পড়ার আগেই এই অদৃশ্য বলয়ের সংস্পর্শে এসে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। কোন প্রযুক্তির ব্যবহারে ইজরায়েল এমন কামাল দেখাচ্ছে।

হামাসের ছোড়া রকেট থেকে ইসরাইলকে রক্ষা করা এই অদৃশ্য বলয় যাকে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন আয়রন ডোম সিস্টেম। এটি হলো একটি অত্যাধুনিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। এই ব্যবস্থা হল শর্ট রেঞ্জ গ্রাউন্ড টু এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম। এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করেছে রাফাল অ্যাডভান্স ডিফেন্স সিস্টেম এবং ইজরায়েল এরোস্পেস ইন্ডাস্ট্রিজ। এই ব্যবস্থাপনা ইজরাইল ২০১১ সাল থেকে ব্যবহার করতে শুরু করেছে।

এর কাজ হলো শত্রুপক্ষের ছোঁড়া মিসাইল, রকেট, ক্ষেপনাস্ত্র, মর্টার ইত্যাদিকে আকাশের মধ্যেই চিহ্নিত করা এবং ধ্বংস করে দেওয়া। শুধু তাই নয় এর পাশাপাশি নির্দিষ্ট আকাশসীমার মধ্যে ঢুকে পড়া হেলিকপ্টার, ড্রোনকেও চিহ্নিত করে এই ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে পারে। এই সিস্টেম তৈরি করা সংস্থা রাফাল দাবি করেছে, অত্যাধুনিক এই প্রযুক্তি যেকোনো আবহাওয়াতেই কাজ করতে সক্ষম। অন্যদিকে ইজরায়েলের মত এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তি আমেরিকাও ব্যবহার করে থাকে। যা তাদের দেশকে শত্রুপক্ষের হাত থেকে রক্ষা করতে সক্ষম।

আরও পড়ুন :

জানা গিয়েছে, গত সপ্তাহের সোমবার সন্ধ্যা থেকে মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত ইসরাইলকে লক্ষ্য করে হামাস ৬৩০টির রকেট ছোঁড়ে। যে গুলির মধ্যে ২০০টি রকেট এই অদৃশ্য বলয় আয়রন ডোম ডিফেন্স সিস্টেম আটকে দিতে সক্ষম হয় এবং ১৫০টি রকেট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।