Outstanding Payment: দিতে হবে বকেয়া টাকা, সঙ্গে ৬% সুদ! রাজ্যের কান মুলে বড় রায় কলকাতা হাইকোর্টের

Prosun Kanti Das

Published on:

The Calcutta High Court ordered the Govt to settle the outstanding amount with interest: ২০১২ সালে স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের জন্য ১ টি নতুন নিয়ম চালু করা হয়েছিল। যদি কোন পরিবারে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যেকোনো ১ জন কোন সরকারি বা সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলের শিক্ষক বা শিক্ষিকা হয়ে থাকেন এবং অপরজন কোন বেসরকারি সংস্থার কর্মী হয়ে থাকেন তাহলে ১ টি বিশেষ সুযোগ সুবিধা দেওয়া হতো তাদেরকে। নিয়ম অনুযায়ী, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যেকোনো ১ জন বাড়ি ভাড়া বাবদ ভাতা পেতে পারতেন রাজ্য সরকারের কাছ থেকে। ২০১২ সালের নিয়মটি চালু হওয়ার পর ২০২১ সালে সেই নিয়ম বাতিল করে দেওয়া হয়। কিন্তু ২০১২ সাল থেকে ২১ সালের মধ্যেও বাড়ি ভাড়া বাবদ বরাদ্দ ভাতার ১ পয়সাও পাওয়া যায়নি এমনটাই অভিযোগ করা হয়েছিল রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। বকেয়া ভাতা (Outstanding Payment) পরিশোধ করানোর জন্য এবার কড়া পদক্ষেপ নিল হাইকোর্ট।

এখনো পর্যন্ত ১৪ জনেরও বেশি শিক্ষক-শিক্ষিকা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। তারা বলেছিলেন, এখনও পর্যন্ত বাড়ি ভাড়া বাবদ প্রাপ্য ভাতার ১ পয়সাও দেওয়া হয়নি সরকারের পক্ষ থেকে। এর আগেও ১ বার হাইকোর্টের পক্ষ থেকে ভাতা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল রাজ্য সরকারকে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত সেই নির্দেশ পালন করেনি রাজ্য। তাই অর্থ ও শিক্ষা দপ্তরের সচিব সহ শীর্ষকর্তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার জন্য আইন জারি করা হয় কিন্তু তাতেও কোন লাভ হয়নি বলেই জানা গেছে। তাই সম্প্রতি হাইকোর্টের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এই নির্দেশের পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বকেয়া ভাতা (Outstanding Payment) পরিশোধ করতে বাধ্য থাকবে রাজ্য সরকার।

তবে এখন আর শুধু বকেয়া ভাতা (Arrears Allowance) পরিশোধ করলে হবে না। দিতে হবে অতিরিক্ত ৬ শতাংশ সুদও। সম্প্রতি রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে শিক্ষা মহলের পক্ষ থেকে যে মামলা করা হয় তার উপর ভিত্তি করে এমন রায় দিয়েছে হাইকোর্ট। নতুন ভাবে করা মামলায় শিক্ষকরা দাবি করেছিলেন বকেয়া ভাতার সাথে ৬% সুদ যুক্ত করে তা শিক্ষকদের হাতে তুলে দেবার জন্য। কলকাতা হাইকোর্ট এই ব্যাপারে শিক্ষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। মামলার রায় বেরিয়েছে শিক্ষকদের স্বপক্ষে। হাইকোর্টের পক্ষ থেকে জারি করা নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী, শুধুমাত্র বকেয়া ভাতা পরিশোধ করলে চলবে না। ৬ শতাংশ সুদ যুক্ত করে শিক্ষকদের বকেয়া ভাতা (Outstanding Payment) পরিশোধ করতে বাধ্য থাকবে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন 👉 Central Government Employees: অনেক হলো DA, এবার একসঙ্গে এই ১৩টি ভাতা বৃদ্ধির মেগা খবর পেতে চলেছেন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীরা

কলকাতা হাইকোর্টের বর্তমান বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু এই মামলার রায় জানিয়েছেন। মামলার রায় দিতে গিয়ে তিনি বলেন, আদালত প্রায় আড়াই বছর আগে সরকারি বিজ্ঞপ্তি বাতিল করে দেওয়ার পরও বকেয়া টাকা কেন শোধ করা হয়নি তা বোঝা যাচ্ছে না। আদালতের রায় অবমাননা করার কারণ কি? হাইকোর্টের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে সমস্ত বকেয়া টাকা (Outstanding Payment) পরিশোধ করতে হবে রাজ্য সরকারকে। বাড়ি ভাড়া বাবদ নির্ধারিত ভাতা পরিশোধ করার পাশাপাশি দিতে হবে অতিরিক্ত ৬ শতাংশ সুদও। এর অন্যথা হলে সরকারের বিরুদ্ধে আরো কড়া পদক্ষেপ নিতে পারে কলকাতা হাইকোর্ট।

আড়াই বছর আগে রায় ঘোষণা হওয়ার পরও আজও কেন সমস্যা মেটে নি তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে হাইকোর্ট। রাজ্য সরকারের এতটা গাফিলতি কোনমতেই কাম্য নয়। সরকারের পক্ষ থেকে জমা দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, সামান্য কিছু ক্ষেত্রে বকেয়া টাকা (Outstanding Payment) পরিশোধ করা হয়েছে। কিন্তু বেশিরভাগটাই এখনও বাকি রয়ে গেছে বলেই জানা যাচ্ছে। এতদিন ধরে বকেয়া ভাতা আটকে রাখার কোন কারণ দেখাতে পারেনি রাজ্য সরকার। হাইকোর্ট জানিয়েছে নিয়ম মেনে সমস্ত বকেয়া টাকা ৪ সপ্তাহের মধ্যে শোধ করা না হলে, জেলা স্কুল পরিদর্শকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে হাইকোর্ট।