‘লাট সাহেবের বেটি’, মাস্ক পরতে বলাই তেড়ে গেলেন পুলিশকে

নিজস্ব প্রতিবেদন : দেশে প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বিপুল সংখ্যায় বাড়তে শুরু করেছে তাতে বর্তমানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই লক্ষের বেশি। সোমবারের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৭৩ হাজার ৮১০। পাশাপাশি নতুন করে প্রাণহানি হয়েছে ১৬১৯ জনের। আর এমত অবস্থায় দেশের প্রতিটি নাগরিককে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে সতর্ক করা হচ্ছে। কিন্তু এই সতর্ক করতে গিয়েই বিপত্তি।

আক্রান্তের সংখ্যা যতই বৃদ্ধি পাক না কেন সমাজের কিছু এমন মানুষ রয়েছেন যারা বিষয়টিকে অগ্রাহ্য করেই চলেছেন। আর সেই ঘটনাকেই ফের একবার প্রমাণ করলো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিও। যে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে এক মহিলা রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন এক পুলিশ অফিসারকে। আর এই ঘটনার পর নেটিজেনরা ওই মহিলার ব্যবহার দেখে ‘ঠিক যেন লাট সাহেবের বেটি’ বলে কটাক্ষ করেছেন।

জানা গিয়েছে, ওই মহিলা এবং তার স্বামী রবিবার দিল্লির দরিয়াগঞ্জ এলাকায় মাস্ক না পড়ে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় বের হয়েছিলেন। পুলিশ এই ঘটনা দেখতে পেয়ে তাদের গাড়ি আটকায় এবং মাস্ক পড়ার অনুরোধ করে। আর এই অনুরোধের পরেই ওই মহিলা কর্তব্যরত পুলিশের সাথে তর্ক বিতর্ক শুরু করে দেন। শুধু তর্ক বিতর্ক বললে ভুল হবে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিতে দেখা যায় ওই মহিলাকে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ওই মহিলার স্বামী গাড়ি আটকানোর পর পুলিশকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘কেন আপনি আমাদের গাড়ি থামালেন? আমি আমার স্ত্রীর সঙ্গে যাচ্ছি।’ পুলিশ তখন তাঁদের বলে মাস্ক পরতে। আর এর পরেই ওই মহিলা গাড়ি থেকে বেরিয়ে পুলিশের সাথে ঝামেলায় জড়িয়ে যান। ওই মহিলাকে চিৎকার করে বলতে শোনা যায়, ‘করোনাভাইরাস বলে কিছু নেই ৷ মানুষকে হয়রান করার জন্যই পুলিশ এরকম করছে।’ এখানেই শেষ নয় ওই মহিলা পুলিশকে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, ‘আমি আমার স্বামীকে চুমু খাবো৷ পারবেন আটকাতে?’

আরও পড়ুন :

পুলিশ সূত্রে ওই দম্পতির নাম জানা গিয়েছে পঙ্কজ গুপ্ত এবং আভা গুপ্ত। পুলিশ সূত্রে এটাও জানা গিয়েছে ওই দম্পতির কাছে রাস্তায় বের হওয়ার সময় কোনোরকম কারফিউ পাসও ছিল না।