অসুস্থ কিশোরীর চিকিৎসায় এক চিঠিতে ৩০ লক্ষ টাকা সাহায্য প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদন : ললিত নামে ছোট্ট কিশোরী কঠিন রোগ অ্যাপ্ল্যাস্টিক অ্যানিমিয়ায় আক্রান্ত। আর সেই কিশোরীর চিকিৎসার জন্য অর্থ সাহায্যের সিদ্ধান্ত নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

কিন্তু কেন এমন সিদ্ধান্ত তিনি নিলেন?

মেয়ের চিকিৎসার জন্য বিপুল খরচ আর বহন করতে পারছিলেন না রাজস্থানের জয়পুরের ললিতের বাবা সুমের সিং। অগত্যা কোনো উপায় খুঁজে না পেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দ্বারস্থ হন তিনি। চিকিৎসায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে একটি চিঠি লেখেন।

ললিত নামে ওই কিশোরীর চিকিৎসার জন্য বিপুল অর্থ খরচ হচ্ছে। কিশোরীর বাবা জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই তিনি ৭ লাখ টাকা খরচ করে দিয়েছেন। এই টাকা জোগাড়ের জন্য তাকে নিজস্ব সমস্ত জমি পর্যন্ত বিক্রি করতে হয়েছে। কিন্তু এরপরে আর তার পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। শেষমেষ অগত্যা আর কোনো উপায় না পেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি।

অ্যাপ্লাস্টিক অ্যানিমিয়ায় আক্রান্ত হলে শরীরে রক্ত কষে নতুন রক্তকোষ তৈরি হওয়া প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলে শরীরে সংক্রমণ বেড়ে যায় এবং অনিয়ন্ত্রিত ভাবে রক্তক্ষরণ হতে থাকে। আর এই রোগ থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি জন্য উপায় বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট, যা করতে হবে ললিতের ক্ষেত্রেও। আর এই জটিল অপারেশনের জন্য প্রয়োজন বিপুল থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ।

ললিতের বাবার তরফ থেকে এমন একটি চিঠি পেয়ে প্রধানমন্ত্রী দপ্তর থেকে তার চিকিৎসার জন্য ৩০ লক্ষ টাকার বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী ন্যাশনাল রিলিফ ফান্ড থেকে এই অর্থ দেওয়া হয় ওই কিশোরীর চিকিৎসার জন্য।