আহত মুরগি ছানাকে নিয়ে হাসপাতালে : কুর্নিশ এই ছোট্ট শিশুকে

নিজস্ব প্রতিবেদন : পথদুর্ঘটনায় আহতদের সাহায্যের হাত না বাড়িয়ে পথ চলতি সাধারণ মানুষেরা বেশিরভাগ সময় এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এখানে মানবিকতার অভাব বলাটা ভুল হবে, ব্যস্ত জীবনে ঝামেলা এড়াতে এমনটাই করেন বেশিরভাগ মানুষ।

কিন্তু সেই ভীতু অথবা ঝামেলাকে এড়িয়ে চলার মত মানুষদের মধ্যে পড়ে না এই ছোট্ট শিশুটি। মিজোরামের এই ছোট্ট শিশু। সে জানে কিভাবে তার দায়িত্ব পালন করতে হয়। সম্প্রতি এমনই একটি পোস্ট ফেসবুকে করেন এক ব্যক্তি, আর তার পরেই সেই পোষ্টটি মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। কারণ একটাই, ছোট্ট ঐ শিশুটির মানবিকতা এবং দায়িত্ব হার মানিয়েছে গুরুজনদের।

সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় তার সাইকেলে ধাক্কা লাগে একটি ছোট্ট মুরগির ছানার। আহত ওই ছানাটাকে সে রাস্তায় ফেলে কাপুরুষের মত পালিয়ে যায় নি। বরং তাকে যত দ্রুত সম্ভব নিয়ে গিয়েছে হাসপাতালে। তার কাছে থাকা সমস্ত টাকা দিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে চিকিৎসার আর্জি।

সম্প্রতি ফেসবুকে করা ওই পোস্টে দেখা যাচ্ছে ছোট্ট এই শিশুটির এক হাতে রয়েছে একটি মুরগির ছানা এবং অন্য হাতে রয়েছে দশ টাকার একটি নোট।

আসলে ওই শিশুটি চিকিৎসা করানোর জন্য মুরগি ছানাটিকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছিল। কারণ ও নিজেই ওই মুরগি ছানাটিকে ধাক্কা মেরে ছিল। তাই আহতের চিকিৎসা করাতে এসে আহতকে নিয়ে হাসপাতালে।

ছোট্ট শিশুদের মন জলের মত সরল হয়। তাদের মনের মধ্যে থাকে না কোন পাপের স্থান, তাই নিস্পাপ শিশুদের ভগবানের অন্য রূপ হিসেবেও দেখা হয়। আর তাই বোধ হয় প্রাপ্ত বয়স্কদের মত দায় এড়ানোর চেষ্টা করেনি এই ছোট্ট শিশুটি।