ভারতের গর্ব এ রাজ্যের ‘বৃষ্টি’ ; দাবা প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক জয়ী

নিজস্ব প্রতিবেদন : এ বছর মার্চ মাসের শেষের দিকে শ্রীলঙ্কায় আয়োজিত হয় অনূর্ধ্ব ১৬ দাবা প্রতিযোগিতা। চলে এপ্রিলের মাঝ বরাবর। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে এশিয়া মহাদেশের ২৩ টি দেশের ৫৫০ জনের বেশি প্রতিযোগীরা। সেই সকল প্রতিযোগীদের মাঝে নিজের সফলতা অর্জন করে ভারতের হয়ে একমাত্র স্বর্ণপদক ছিনিয়ে নিয়ে আসে বৃষ্টি মুখার্জি।

ভারতের হয়ে একমাত্র স্বর্ণপদক জয়ী বৃষ্টি মুখার্জি বর্ধমানের মেমারির বাসিন্দা (১৫ বছর)। বাবা দেবাশীষ মুখার্জী এবং মা অপরূপা মুখার্জি। বৃষ্টি মেমারি রসিকলাল স্মৃতি বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী। পড়াশোনার পাশাপাশি দাবা খেলার প্রতি তার একান্ত ঝোঁক তাকে বারবার দেশ-বিদেশে নানান প্রতিযোগিতায় পদক এনে দিয়েছে। দাবার প্রতি ঝোঁক দেখে বাবা দেবাশিস বাবু পাঁচ বছর বয়স থেকেই তাকে কলকাতার মিন্টু পার্কের এলাইন প্রেসক্লাবে দাবা শেখার জন্য ভর্তি করে দেন। অনলাইন এবং অফলাইন বিভিন্ন পদ্ধতিতে সে দাবা খেলার শিখে এখন পোর খাওয়া দাবাড়ু। এবছর শ্রীলঙ্কায় আয়োজিত অনূর্ধ্ব ১৬ যুবা দাবা প্রতিযোগিতায় প্রতিনিধিত্ব করে ভারতের একমাত্র প্রতিযোগী হিসেবে স্বর্ণপদক ছিনিয়ে নিয়ে আসে তার ইভেন্টে। তার হাত ধরেই ভারত এই প্রতিযোগিতায় চতুর্থ স্থান অর্জন করে।

তবে এই পুরস্কার তার কাছে প্রথম নয়, দেশ-বিদেশে আয়োজিত নানান প্রতিযোগিতা থেকে তিনি ছিনিয়ে নিয়ে এসেছেন একের পর এক পুরস্কার। তার বয়স যখন সাত বছর, তখনই তিনি পুরস্কারের স্বাদ বুঝতে পেরেছিলেন, সেটাই ছিল তার জীবনের প্রথম দাবা প্রতিযোগিতায় পদক।

বিদেশে আয়োজিত বিভিন্ন দাবা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের দরুন তার জন্য রয়েছে আলাদা করে কোচ। শ্রীলঙ্কায় এই প্রতিযোগিতায় তাঁর কোচ ছিলেন শুভ্রজিৎ সাহা।

বৃষ্টি জানিয়েছে, “তার দাবা খেলার প্রতি এত ঝোঁকের পিছনে এবং বারবার পদক জয়ের পিছনে রয়েছে বাবার অনুপ্রেরণা ও মায়ের একান্ত পরিশ্রম। সাথে সাথে কোচদের সহযোগিতা।”

বিদেশে আয়োজিত এমন দাবা প্রতিযোগিতায় শয়ে শয়ে দাবাড়ুদের মাঝে এ বাংলার বর্ধমানের মেমারির বৃষ্টির নিজের ইভেন্টে স্বর্ণপদক জয়, তাও আবার এবছরের প্রতিযোগিতায় ভারতের একমাত্র স্বর্ণপদক জয়ী, যে জেলা, বাংলা তথা দেশের গর্ব, সে কথা বলা অনস্বীকার্য।