একদিকে তারাপীঠ, অন্যদিকে কঙ্কালীতলা, কালী পুজোয় বিশেষ পুজোর আয়োজন

নিজস্ব প্রতিবেদন : দীপান্বিতা অমাবস্যাই শক্তিপীঠ তারাপীঠে তারা মাকে কালি রূপে পুজো করা হয়ে আসছে শতাব্দি প্রাচীন সময়কাল ধরে। বছরের বিভিন্ন সময় এখানে বিভিন্ন তিথিতে তারা মাকে বিভিন্ন রূপে পূজা করা হয়ে থাকে। যেমন দুর্গাপুজোয় দেবী দুর্গার রূপে, লক্ষ্মী পুজোয় দেবী লক্ষ্মী রূপে, জগদ্ধাত্রী পূজোয় দেবী জগদ্ধাত্রী রূপে।

তারাপীঠে তারা মায়ের এই পুজোকে কেন্দ্র করে কালীপুজোর রাতে মাকে স্বর্ণালঙ্কারে সাজিয়ে রাজরাজেশ্বরী রূপ দেওয়া হয়। প্রতিবছর এই দিনটিতে পার্শ্ববর্তী এলাকার পুণ্যার্থীরাও ছাড়াও দূর দূরান্ত থেকে মানুষের সমাগম হয়ে থাকে। এদিন মা তারার জন্য দুবেলা অন্যের ভোগ হয়। অন্য ভোগে থাকে খিচুড়ি, পোলাও, পাঁচরকম ভাজা, দু’তিন রকমের তরকারি, মাছ, শোল মাছ পোড়া, চাটনি, পায়েস, মিষ্টি। সন্ধ্যারতির সময় ই ভোগ হিসেবে দেওয়া হয় লুচি, মিষ্টি।

অন্যদিকে একইভাবে কালী পুজোয় দিনভর পূজো চলছে জেলার অন্যতম সতীপিঠ কঙ্কালী তলায়। সোমবার সকাল থেকেই এখানে ভক্তদের আনাগোনা শুরু হয়েছে এবং মায়ের পুজো দেওয়া চলছে। দিনভর এখানে পুজো হবে এবং অমাবস্যা লাগার পর বিশেষ পুজোর আয়োজন করা হবে। সোমবার অমাবস্যা শুরু হচ্ছে বিকাল ৪:৫৮ মিনিটে। রাতে তন্ত্র-মন্ত্র পড়ে পুজোর পাশাপাশি রয়েছে যজ্ঞানুষ্ঠান।

কংকালী মাকে এদিন ভোগ হিসাবে দেওয়া হবে খিচুড়ি, ভাজা, চাটনি, পরমাণ্ন ভোগ, ফ্রাইড রাইস, ডাল, পায়েস, মিষ্টি ইত্যাদি। এছাড়াও রাতে খিচুড়ি ভোগ দেওয়া হবে কংকালী মাকে। সেই খিচুড়ি ভোগ আমিষ হবে এবং তাতে থাকবে পাঁঠার মাংস। সোমবার সকাল থেকেই কঙ্কালীতলায় ভিড় জমাতে শুরু করেছেন পুণ্যার্থীরা।

বীরভূমে যে সকল জায়গায় ধুমধাম করে কালীপুজো হয়ে থাকে তার মধ্যে তারাপীঠ, কঙ্কালীতলা ছাড়াও রয়েছে নলাটেশ্বরী ইত্যাদি বিভিন্ন প্রসিদ্ধ শক্তিপীঠ ও সতীপীঠ। এছাড়াও লাভপুরের দোনাইপুর, ইন্দ্রগাছা গ্রামের বামা কালী সহ বিভিন্ন জায়গায় ধুমধাম করে কালীপুজোর আয়োজন করা হয়।