Kolkata-Digha-Kolkata Train: হাওড়া অতীত, এবার কলকাতা থেকে সরাসরি দীঘা ট্রেন চালু রেলের

Madhab Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে এখন জাঁকিয়ে বসেছে বর্ষা। এমন বর্ষার মরশুমে পর্যটকরা পাহাড়ে ঘুরতে যাওয়ার মতো ঝুঁকি নিতে চান না। যে কারণে পর্যটকদের বড় অংশ দিঘার মত সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে যেতে পছন্দ করেন। পর্যটকদের এমন পছন্দের কথা মাথায় রেখেই এবার পূর্ব রেল (Eastern Railway) কলকাতা-দিঘা-কলকাতা স্পেশাল ট্রেনের (Kolkata-Digha-Kolkata Train) বন্দোবস্ত করলো।

কলকাতার যে সকল বাসিন্দারা রয়েছেন অথবা বিভিন্ন জায়গা থেকে এসে প্রথমে কলকাতায় উঠে তারপর দীঘা যান, তাদের এতদিন পর্যন্ত হাওড়া স্টেশনে এসে ট্রেন ধরতে হতো। হাওড়া স্টেশন ছাড়াও সাঁতরাগাছি থেকেও কখনো কখনো স্পেশাল ট্রেন ছাড়া হয় দীঘার জন্য। তবে এবার এসবকে বাদ দিয়ে সরাসরি কলকাতা থেকে দীঘা যাওয়া ও আসার স্পেশাল ট্রেন দিল পূর্ব রেল।

পূর্ব রেলের তরফ থেকে যে স্পেশাল ট্রেনের ঘোষণা করা হয়েছে সেই স্পেশাল ট্রেনটির ফলে ৩ হাজার বার্থ এবং ১০ হাজার আসনের সুবিধা পাবেন যাত্রীরা। এই ট্রেনটিতে সাধারণ শ্রেণীর কামরা থেকে শুরু করে সেকেন্ড ক্লাস সিটিং, স্লিপার ক্লাস এবং এসি কোচ রয়েছে। ট্রেনটি জুলাই মাসে মোট সাতটি ট্রিপ দেবে। ট্রেনটি আগামী ৭ জুলাই থেকে ২৮ জুলাই পরিষেবা দেবে এবং সপ্তাহে শনিবার ও রবিবার যাতায়াত করবে। এই ট্রেনটির ফলে এখন কলকাতার বাসিন্দা এবং কলকাতা নির্ভর পর্যটকদের আর হাওড়ায় এসে ট্রেন ধরার প্রয়োজন পড়বে না।

আরও পড়ুন 👉 Digha Jagannath Dham Video: হুবহু পুরি, কেমন হচ্ছে দীঘার জগন্নাথ মন্দির? ভিডিও দেখালেন মমতা

০৩১৬১ কলকাতা দীঘা স্পেশাল ট্রেনটি কলকাতা স্টেশন থেকে ছাড়বে দুপুর ২টোর সময়। ট্রেনটি দীঘা স্টেশন পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬:৫০ মিনিটে। অন্যদিকে ফেরার পথে অর্থাৎ ০৩১৬২ দীঘা কলকাতা স্পেশাল ট্রেনটি দীঘা স্টেশন থেকে ছাড়বে সন্ধ্যা ৭:১০ মিনিটে। ট্রেনটি কলকাতা স্টেশন এসে পৌঁছাবে রাত ১১ঃ৫৫ মিনিটে। কলকাতা থেকে এই ট্রেনটি যাতায়াতের ক্ষেত্রে সময় নেবে ৪ ঘন্টা ৫০ মিনিট। ইতিমধ্যেই এই স্পেশাল ট্রেনটির টিকিট বুকিং শুরু হয়ে গিয়েছে অনলাইন ও অফলাইনে।

রেলের তরফ থেকে যে সূচি প্রকাশ করা হয়েছে সেই সূচি অনুযায়ী ট্রেনটি কলকাতা এবং দীঘা স্টেশন ছাড়াও স্টপেজ দেবে আন্দুল, উলুবেড়িয়া, বাগনান, মেছেদা, তমলুক ও কাঁথি স্টেশনে। যে কারণে কলকাতা ও দীঘা রেল স্টেশন ছাড়াও এই সকল রেলস্টেশন এলাকার মানুষরাও এই ট্রেনটির ফলে উপকৃত হবেন। অন্যদিকে স্পেশাল ট্রেন হিসাবে চালানো এই ট্রেনটির চাহিদা যদি ভালো থাকে তাহলে আগামী দিনেও ট্রেনটি চালানো হতে পারে বলে সূত্রের খবর।