‘ম্যাজিক হবে, ম্যাজিক দেখবে’, অনুব্রতর ‘খেলা হবে’র পাল্টা লকেট

নিজস্ব প্রতিবেদন : বিধানসভা নির্বাচনের আগে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল স্লোগান তুলেছেন ‘খেলা হবে’, আর এই স্লোগানের পাল্টা বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জির দাবি, ‘খেলা হবে না। ম্যাজিক হবে, ম্যাজিক দেখবে’। ভোটের প্রাক্কালে রবিবার বীরভূমের লাভপুরের জামনা অঞ্চলের বাগটোর গ্রামে জনসভা করতে এসে এই ভাবেই তৃণমূলকে খোঁচা দিলেন লকেট চ্যাটার্জি।

তিনি মঞ্চে বক্তব্য রাখার সময় বলেন, “বলছে খেলা হবে। মানুষকে ফুটবল পেয়ে গেছে নাকি? ফুটবল নাকি! যে মানুষকে এদিক থেকে ওদিক, ওদিক থেকে এদিক করে নিয়ে যাবে? খেলা হবে না। ম্যাজিক দেখবে সবাই। ম্যাজিক হবে ম্যাজিক। সব ম্যাজিক হবে। দেখবেন সবাই তৃণমূলের পতাকা নিয়ে গিয়ে হঠাৎ ম্যাজিক করে সব পদ্মফুল। সব ম্যাজিক করে পদ্মফুল।”

এর পরেই তিনি অনুব্রত মণ্ডলের নাম না করে তার প্রসঙ্গ টেনে তাকে কটাক্ষ করতে শুরু করেন। বলেন, “এখানকার যিনি আছেন তিনি তো অনেক বড় বড় কথা বলতেন। ২০১৬ থেকে দেখে আসছি। অনেক বড় বড় কথা। স’ন্ত্রা’সের আঁতুড়ঘর, বা’রুদের আঁতুড়ঘর, এখন কি হয়েছে? বেলুন ফুস হয়ে গেছে পুরো। বেলুন পুরো ফুস হয়ে গেছে। এই বোলপুরের বুকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেভাবে রোড শো করে গেছেন। লক্ষ লক্ষ হাজার হাজার জনতা বোলপুরে তার সাথে ছিলেন এবং আগামী দিনে এই বীরভূমের ঢুকে প্রত্যেকটা সিটে পদ্মফুল ফুটবে।”

বীরভূমে এসে কেবলমাত্র বীরভূম প্রসঙ্গ নিয়েই থেমে থাকেননি লকেট চ্যাটার্জি। পাশাপাশি তিনি পিসি ভাইপোর প্রসঙ্গ টেনে তাদেরও কড়া আক্রমণ করেন। আক্রমণ শানাতে গিয়ে বলেন, “সবাই জেনে গেছে পিসি ভাইপোর সিন্ডিকেট কোম্পানির আর কিছু করার নেই। ১০ বছরে যা খাওয়ার সব খেয়ে নিয়েছে। ভালো ভালো নেতা যারা আছেন তারা বিজেপিতে চলে এসেছেন। আর কেউ নেই। সব পিলারগুলো একে একে ভেঙে পড়েছে। বাকি আছে পিসি আর ভাইপো।”

এই ভাবে আক্রমণ শানানোর পাশাপাশি তিনি দাবি করেন, “পিসি ভাইপো সিন্ডিকেট কোম্পানি এবারে একটাও ভোট পাবে না। ওই চাল চোর তৃণমূল, ত্রিপল চোর তৃণমূল, কয়লা চোর তৃণমূল, গরু চোর তৃণমূল, ইট চোর তৃণমূলকে বাংলা থেকে বাংলার জনতা বাইরে পাঠাবে।”

অভিষেক ব্যানার্জীর স্ত্রীকে সিবিআইয়ের নোটিশ পাঠানো প্রসঙ্গকেও তিনি এদিন টেনে আনেন। বলেন, “কয়লা চুরির জন্য সিবিআই আজকে ভাইপোর বাড়িতে চলে গেছে। অমনি শাশুড়ি মা (মমতা ব্যানার্জী) চলে এসেছেন। বলছেন কয়লা চোর বাংলার বৌমাদের বলছো। ধরেছে তো উনার (মমতা ব্যানার্জী) বৌমাকে। তাহলে হঠাৎ উনি বাংলার বৌমা টানছেন কেন? তাহলে কি উনি বাংলার বৌমাদেরও কয়লা চোর বলছেন! যে কয়লা চোর তাকে সিবিআই ধরতে গেছে। বাংলার বউদের বাংলার মেয়েদের কখনো কয়লা চোর বলবেন না। অনেক অসম্মান করেছেন। অনেক অসম্মান করেছেন। বাংলার কেউ ন্যায় পাই নি।”

আরও পড়ুন :

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে চুপচাপ বেশ কিছু প্রতিফলন দেখে বাংলা। তৃণমূল ৪২ এ ৪২-এর ডাক দিলেও দেখা যায় তাদের ২২-এই থামতে হয়। অন্যদিকে বিজেপির আসন সংখ্যা এক ধাক্কায় বেড়ে দাঁড়ায় ১৮। এই আত্মবিশ্বাস এখনও অটুট বলেই রাজনৈতিক মহলের একাংশ।