টলিউডের যেসকল তারকারা ডুবে রয়েছে ঋণে, রইলো তালিকা

নিজস্ব প্রতিবেদন : বাংলা ভোটে দীর্ঘদিন ধরেই টলিউডের যোগসাজশ লক্ষ্য করা যায়। তবে সরাসরি রাজনীতির আঙ্গিনায় টলিউড অভিনেতা অভিনেত্রীদের আসা মূলত তৃণমূলের হাত ধরেই। ২০০৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময়কাল থেকেই একাধিক টলি অভিনেতা-অভিনেত্রীকে সরাসরি তৃণমূলের প্রার্থী হতে দেখা যায়। আর তারকাদের এই প্রার্থী হওয়া একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে আরও ত্বরান্বিত হয়।

তবে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে শুধু তৃণমূল না, একইভাবে একাধিক টলি তারকাকে নিজেদের নিজেদের শিবিরের টেনে চমক দেয় গেরুয়া শিবিরও। শুধু টলি অভিনেতা-অভিনেত্রীদের দলে আনা নয়, পাশাপাশি তারা একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রীদের প্রার্থীও করে।

আর এই সকল তৃণমূল এবং বিজেপি তারকা প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সাথে সাথে নির্বাচন কমিশনের নিয়ম মেনে হলফনামা পেশ করেন। আর সেই হলফনামা থেকেই সামনে এসেছে একাধিক তারকা অভিনেতা অভিনেত্রীরা যারা এবারের নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন তারা ঋণে ঋণে জর্জরিত। চলুন দেখে নেওয়া যাক এই সকল বিজেপি এবং তৃণমূল শিবিরের তারকা প্রার্থীরা কত টাকার ঋণের দায় রয়েছে।

১) সায়নী ঘোষ : টলি অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ এবার আসানসোল দক্ষিণ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি তৃণমূলের টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার মাথায় রয়েছে ৮৩ লক্ষ ৮২ হাজার ৭৫১.৫২ টাকার ঋণ। যার মধ্যে ৬৪ লক্ষ ৪৫ হাজার ৫৫৬.৫২ টাকা ব্যাঙ্ক থেকে এবং বাকি ১৯ লক্ষ ৩৮ হাজার ১৯৫ টাকা মা সুদীপা ঘোষের থেকে।

২) সায়ন্তিকা ব্যানার্জি : সায়ন্তিকা ব্যানার্জি তৃণমূলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাঁকুড়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। অভিনেত্রী সায়ন্তিকা ব্যানার্জি মাথায় রয়েছে ৪০ লক্ষ ৮৭ হাজার ২৪০.৯১ টাকার ঋণ।

৩) শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী : বিজেপির তারকা প্রার্থীদের মধ্যে শ্রাবন্তী চ্যাটার্জীর নাম অন্যতম। তিনি বেহালা পশ্চিম থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার মাথায় রয়েছে ৩৮ লক্ষ ১২ হাজার ৪৫৬ টাকার ঋণ।

৪) কৌশানী মুখোপাধ্যায় : তৃণমূলের অন্যতম তারকা প্রার্থী হলেন কৌশানী মুখোপাধ্যায়। তিনি এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন কৃষ্ণনগর উত্তর থেকে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে। তার মাথায় রয়েছে ৮১ লক্ষ ২০ হাজার ৮৫৯ টাকার ঋণ।

৫) সোহম চক্রবর্তী : দীর্ঘদিনের তৃণমূলের সঙ্গী সোহম চক্রবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চন্ডিপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। তার মাথায় রয়েছে ১ কোটি ৭০ লক্ষ ৮২ হাজার ৯২১ টাকা ঋণ।

৬) লাভলী মৈত্র : টলি অভিনেত্রী লাভলী মৈত্র এবার তৃণমূলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে নেমেছেন সোনারপুর দক্ষিণ থেকে। তার এই মুহূর্তে কোন রকম লোন নেই অর্থাৎ তিনি কোথাও ঋণগ্রস্ত নন।

৭) হিরণ চ্যাটার্জী : খড়গপুর সদর থেকে এবার বিজেপির হয়ে ভোটের ময়দানে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন টলি অভিনেতা হিরণ চ্যাটার্জী। তিনি ৬০ লক্ষ ৯৩ হাজার ৯২১ টাকার ঋণগ্রস্ত ব্যাঙ্কের কাছে।

৮) যশ দাশগুপ্ত : চন্ডীতলা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন টলি অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত। তার মাথায় রয়েছে ১ কোটি ৫০ লক্ষ ৫৩ হাজার ১৩৫ টাকার ঋণ।

৯) জুন মালিয়া : তৃণমূলের সাথে তার সম্পর্ক দীর্ঘদিনের হলেও একুশের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি সরাসরি দলে যোগ দেন এবং মেদিনীপুরের তৃণমূল প্রার্থী হন। টলিউড এই অভিনেত্রী কোথাও কোন রকম ভাবে ঋণগ্রস্ত নন।

১০) তনুশ্রী চক্রবর্তী : শ্যামপুরের বিজেপি তারকা প্রার্থী হলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী। তিনি স্বল্প পরিমাণে ঋণগ্রস্থ। তার মাথায় রয়েছে ৫ লক্ষ ৫৪ হাজার ৫৫৪ টাকার ঋণ।

১১) রাজ চক্রবর্তী : পরিচালক ও প্রযোজক রাজ চক্রবর্তী ব্যারাকপুর থেকে তৃণমূলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার ঘাড়ে থাকা মোট ঋণের পরিমাণ ১ কোটি ৬১ লক্ষ ৪৯ হাজার ৩৩৮ টাকা। রাজ চক্রবর্তী ছাড়াও শুভশ্রীর বিপুল পরিমাণ ঋণ রয়েছে। শুভশ্রীর ঋণের অঙ্ক হলো ৫৫ লক্ষ ২৬ হাজার ১০০ টাকা।

১২) পায়েল সরকার : বেহালা পূর্বের বিজেপি প্রার্থী পায়েল সরকার বিজেপির অন্যতম তারকা প্রার্থী। টলিউড এই অভিনেত্রীর ৫৯ লক্ষ ৯৪ হাজার ৩৩৬ টাকার ঋণ রয়েছে।

আরও পড়ুন :

১৩) পাপিয়া অধিকারী : উলুবেরিয়া দক্ষিণে বিজেপি প্রার্থী হলেন পাপিয়া অধিকারী। টলিউড এই অভিনেত্রীর ব্যবসা এবং বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি থাকার পাশাপাশি রয়েছে বিপুল পরিমাণ ঋণের বোঝা। তার ঘরে থাকা মোট ঋণের পরিমাণ হল ৪৪ লক্ষ ৭১ হাজার ৬৪৭ টাকা।