মাধ্যমিকে বীরভূমে প্রথম ও রাজ্যের ষষ্ঠ স্থানাধিকারী প্রতিক্রিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদন : সকাল ৯টায় পশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদের কার্যালয় থেকে সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে প্রকাশ করলেন ২০১৯ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। পর্ষদের তরফ থেকে ফল ঘোষণার সাথে সাথে আনন্দে ভরে ওঠে বীরভূমের রামপুরহাট হাইস্কুল। কারণ এই স্কুলই এবার মাধ্যমিকে জেলায় প্রথম স্থান দখল করেছে, রাজ্যে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করে শ্রাবর্ণ চট্টোপাধ্যায় জেলার মুখ উজ্জ্বল করেছে।

এই বছর মোট ১০,৬৬,০০০ শিক্ষার্থী মধ্যশিক্ষা পর্ষদ আয়োজিত মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসেছিলেন। এর মধ্যে ১০,৬৪,৯৮০ জন নিয়মিত শিক্ষার্থী। ৮৮ দিনের মাথায় ফল প্রকাশ। এবার পাসের হার ৮৬.০৭ শতাংশ৷ পাশের হারে পূর্ব মেদিনীপুর প্রথম (৯৬.১০%), কলকাতা দ্বিতীয় (৯২.১৩%), পশ্চিম মেদিনীপুর তৃতীয় ৯১.৭৮%।

মেধা তালিকায় প্রথম দশে স্থান পেল বীরভূমের তিনজন। শ্রাবর্ণ চট্টোপাধ্যায় (৬৮৫) ষষ্ঠ (রামপুরহাট হাইস্কুল), সৌকর্য বিশ্বাস (নবম) (বিকেটিপি) ৬৮২, অরিত্র বহড়া ৬৮১ (দশম) সিউড়ি নেতাজি স্কুল।

ডাউনলোড মোবাইল অ্যাপ👉 BanglaXp

বাড়ি বীরভূমের রামপুরহাটের নিশ্চিন্তপুরের দীঘির পাড়ে। মায়ের নাম শ্রাবনী চ্যাটার্জী। মা রামপুরহাট হাইস্কুলেরই শিক্ষিকা।

মাধ্যমিকে এবছর ষষ্ঠ স্থান অধিকার করার কথা জানতে পেরেই শ্রাবর্ণ জানায়, “খুবই উৎসাহিত এবং আনন্দিত। বিশ্বাস করতে পারছিনা এরকম রেজাল্ট হবে। ভেবেছিলাম ভালো ফল হবে, তবে এতটা ভাবেনি।”

এত ভাল ফলাফলের শ্রাবর্ণ সম্পূর্ণ অবদান দিয়েছেন তার মাকে। এছাড়াও রয়েছে স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের কৃতিত্ব বলে জানায় শ্রাবর্ণ।

শ্রাবর্ণর প্রথম জীবনের পড়াশোনা শুরু হয় ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে। পরবর্তীকালে সে সেখান থেকে ট্রান্সফার নিয়ে ভর্তি রামপুরহাট হাইস্কুলে। তারপরেই জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষায় এত বড় সাফল্য পেল সে।