যাত্রীবাহী বাসের সাথে চার চাকার সংঘর্ষ, আহত ১২

হিমাদ্রি মণ্ডল : বীরভূমের সিউড়ি শহরের রবীন্দ্রপল্লীতে রবিবার দুপুর বেলা একটি চারচাকা বোলেরো গাড়ির সাথে একটি যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষ বাঁধে। ঘটনায় বাসের ১০ থেকে ১২ জন যাত্রী আহত হন। আহত যাত্রীদের সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পাঠানো হয় চিকিৎসার জন্য। জানা যাচ্ছে যে বোলেরো গাড়িটির সাথে যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষ বাঁধে সেই গাড়িটি পুলিশের গাড়ি।

এদিন দুপুর বেলা সিউড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে আম্বা (ঝাড়খণ্ড) রুটের পিহুনা নামে একটি যাত্রীবাহী বাস রওনা দিলে রবীন্দ্রপল্লীর কাছে ওই গাড়ির সামনে দ্রুত গতিতে চলে আসে ওই বোলেরো গাড়িটি। এরপর দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে বাসের চালক স্টিয়ারিং ঘোরান। দুটি গাড়ির গতি বেশি থাকায় বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পেরে সরাসরি একটি বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার খুঁটিতে ধাক্কা মারে। আর এই দুর্ঘটনার ফলেই বাসের ১০ থেকে ১২ জন যাত্রী আহত হন। দুর্ঘটনার পর বাসের চালকের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

বাসের যাত্রীরা জানিয়েছেন, “দুবরাজপুরের দিকে যাওয়ার সময় হঠাৎ বাসের সামনে পুলিশের ওই গাড়িটি চলে আসে। তারপরেই বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পেরে বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার খুঁটিতে ধাক্কা মারে। ঘটনায় বাসের ১০ থেকে ১২ জন আহত হওয়ার পাশাপাশি দুটি গাড়ি গুরুতর ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।”

আরও পড়ুন :

ঘটনার খবর পেয়ে সিউড়ি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। দুর্ঘটনার পর বেশ কিছুক্ষণ সিউড়ি দুবরাজপুর রাস্তা যানজটের সম্মুখীন হয়। যদিও পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। অন্যদিকে খোদ শহরের মাঝেই এমন দুর্ঘটনায় আবারও প্রশ্ন উঠছে শহরের পথ নিরাপত্তা নিয়ে।