২ বছরের শিশুকে মাথায় নিয়ে গলা ভর্তি জলে পুলিশকর্মী, ভাইরাল হল ছবি

প্রবল বৃষ্টিতে ভাসছে গুজরাটের বডোদরা। পরিস্থিতি আরও অবনতির দিকে যায় গত বুধবার থেকে। আর এই অবস্থায় নাজেহাল অবস্থা শহরের বাসিন্দাদের। বিপদসীমার উপর দিয়ে জল বইছে বিশ্বামিত্রী নদীর। শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঢুকে পড়েছে প্রচুর পরিমাণে জল। সেই জল নামার কোনরকম নামগন্ধ নেই এখনো। আর এরই মাঝে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলো একটি ছবি।

Source

ভাইরাল হওয়া সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এক ভদ্রলোক গলা পর্যন্ত বন্যার জলে একটি ছোট্ট শিশুকে গামলায় ভরে সুরক্ষিত জায়গায় নিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু মাথায় করে ছোট্ট শিশুকে সুরক্ষিত জায়গায় বয়ে নিয়ে যাওয়া ওই ভদ্রলোক কে?

Source

গুজরাট পুলিশের আইপিএস অ্যাডিশনাল ডিজিপি ডঃ শামসের সিং-এর করা ট্যুইট থেকে জানা যায়, ওই ছোট্ট শিশু এবং তার পরিবারকে এইভাবে এই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সুরক্ষিত জায়গায় পৌঁছে দেওয়া ওই ভদ্রলোক হলেন গুজরাট পুলিশের একজন সাব ইন্সপেক্টর। তাঁর নাম গোবিন্দ চোব্দা। ডঃ শামসের সিংপরে ট্যুইটার হ্যান্ডেলে লিখেছেন, “ওই ছোট্ট শিশু ও তার পরিবারকে উদ্ধারের জন্য বডোদরার এই পুলিশ অফিসারের মানবিকতায় আমি গর্বিত, তাঁর অসাধারণ সাহস ও উৎসর্গ দেখে।” এছাড়াও তিনি আরও একটি ট্যুইট করেছেন এই সম্পর্কিত ৪৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও প্রকাশ করে।

জানা গিয়েছে, বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়া বিশ্বামিত্রী স্টেশনের কাছ থেকে ওই ছোট্ট শিশু এবং তার পরিবারকে উদ্ধার করেছেন ওই পুলিশ অফিসার। এও জানা যায় ওই ছোট্ট শিশু বন্যার জলে আটকে যাওয়া পরিবারের কন্যা সন্তান। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই কন্যা সন্তানকে বাচাঁনোর পর ওই পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, “আমরা জানতে পারি, বন্যাকবলিত একটি বাড়ির মধ্যে আটকে পড়েছেন এক মা ও তার ছোট্ট শিশু কন্যা। আমি ওখানে পৌঁছে ওই মহিলা কেবলই একটি প্লাস্টিকের গামলা দেওয়ার জন্য। যাতে করে সুরক্ষিতভাবে আমি ওই শিশু কন্যাকে উদ্ধার করে সুরক্ষিত জায়গায় পৌঁছে দিতে পারি।”

উল্লেখ্য, গত বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত গুজরাটের বডোদরায় বৃষ্টি হয়েছে ৫৫৬ মিলিমিটার। যার মধ্যে মাত্র ছয়ঘণ্টা তেই বৃষ্টির পরিমাণ ৪৫০ মিলিমিটার। আর এই বিধ্বংসী বৃষ্টির কারণে জলে জলাশয় গোটা শহর।