বিজ্ঞাপন

৬ লক্ষ বছরের পুরাতন পাথরে তৈরি হবে অযোধ্যায় রাম মূর্তি, রইল বিশেষত্ব

বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদন : অযোধ্যার রাম মন্দির নিয়ে দেশের মানুষের কাছে কৌতূহলের শেষ নেই। এই মন্দির কবে তৈরি হবে এবং তা সাধারণ মানুষদের জন্য খুলে দেওয়া হবে তা নিয়ে উৎকণ্ঠায় বসে রয়েছেন ভক্তরা। এরই মধ্যে জানা গিয়েছিল, অযোধ্যায় যে রামমূর্তি তৈরি করার জন্য যে পাথর ব্যবহার করা হবে সেই পাথর আনা হবে নেপাল থেকে। এরই মধ্যে এই পাথর সম্পর্কে আরও বেশ কিছু বিশেষত্ব সামনে এলো।

২০২৪ সালের মকর সংক্রান্তির পূর্ণ তিথিতে রাম মন্দিরের গর্ব গৃহে নতুন রামলালার মূর্তি স্থাপন করা হবে। সেইমতো ট্রাস্টের তরফ থেকে কাজ শুরু করে দেওয়া হয়েছে। কাজের তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কেও নতুন নতুন তথ্য সামনে আসছে। এই সকল তথ্যের মধ্যেই জানা গিয়েছে রামলালা মূর্তি তৈরি করার জন্য যে পাথরটি নেপাল থেকে আনা হয়েছে সেই পাথরটি ৬ লক্ষ বছর পুরাতন।

বিজ্ঞাপন

রামায়ণ থেকে জানা যায় ভগবান শ্রী রামচন্দ্রের শ্বশুরবাড়ি নেপাল। সেই কারণে সেখান থেকে এই বিশাল পাথর আনা হয়েছে। একসঙ্গে দুটি পাথর আনা হয়েছে। সেই দুটি পাথর আনা হয়েছে নেপালের গন্ডকি নদী থেকে। পবিত্র দুটি পাথর থেকেই তৈরি করা হবে রাম ও সীতার মূর্তি। সেই মূর্তি তৈরি হওয়ার পর তা মন্দিরের মূল গর্ভগৃহে স্থাপন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

নেপালের মুক্তিনাথ জেলা থেকে যে দুটি পাথর আনা হয়েছে সেই দুটি পাথরের একটির ওজন ১৮ টন এবং অন্যটির ওজন ১২ টন। এগুলি পাঁচ থেকে ছয় ফুট দীর্ঘ এবং চার ফুট চওড়া। বহু প্রাচীন এই পাথরগুলি শালগ্রাম শিলা বলেই পরিচিত। হিন্দু ধর্মমতে শালগ্রাম শিলাকে বলা হয়ে থাকে বিষ্ণুর অবতার। যে পাথরগুলি আনা হয়েছে সেই পাথরগুলি ৬ লক্ষ বছরের বেশি প্রাচীন হওয়ার পাশাপাশি তাতে ৩৩ রকমের জীবাশ্ম পাওয়া গিয়েছে।

সনাতন রীতি অনুযায়ী মকর সংক্রান্তিতে শুভ অনেক কাজ করা হয়ে থাকে। সেই রকমই মূর্তি স্থাপনের ক্ষেত্রেও এই দিনটিকে বেছে নেওয়া হয়। কারণ এই সময় সূর্য দক্ষিণ থেকে উত্তর গোলার্ধে ভ্রমণ করে থাকে।