দুধের সন্তানকে পিঠে বেঁধে সাফাইয়ের কর্তব্য মায়ের, মন জয় করা ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন : মায়ের কাছে যেমন তার সন্তান সবচেয়ে বড়, ঠিক তেমনি আবার সন্তানদেরও অধিকার মায়ের ভালোবাসা পাওয়া। যে কারণে এখন মাতৃত্বকালীন ছুটি রয়েছে বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থায়। তবে এমন কিছু মানুষ রয়েছেন যারা পেটের তাগিদে এই সকল নিয়ম কানুনকে ভুলে যান অথবা সুবিধা পান না।

মাতৃত্বকালীন ছুটি অথবা সেই সময় ঠাণ্ডা ঘরে বসে সন্তানকে আদর করার মতো সুযোগ সবার জোটে না। যেমনটা হয়েছে ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলার বারিপদ এলাকার এক সাফাই কর্মী লক্ষ্মী মুখির ক্ষেত্রে। প্রতিদিন তাকে ঝাঁটা হাতে এলাকা পরিষ্কার করতে দেখা যায়। আর সন্তানের জন্ম দেওয়ার পরেও সেই একইভাবে তাকে ঝাঁটা হাতে রাস্তা পরিষ্কার করতে দেখা গিয়েছে।

ওই মায়ের একটি ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। যেখানে দেখা যাচ্ছে তার পিঠে বাঁধা একটি ব্যাগ। সেখানেই রয়েছে তার দুধের শিশু। এইভাবে সন্তানকে পিঠে বেঁধেই লক্ষ্মীকে দেখা গিয়েছে রাস্তাঘাট থেকে শুরু করে নালা-নর্দমা সব পরিষ্কার করতে। তবে এইভাবে কষ্ট করে কাজ করার সময় কোন রকম ক্লান্তি নেই লক্ষ্মীর। শুধু প্রয়োজন একটু বিরতির, যেন দুধের শিশুকে দুধ খাওয়ানোর সময় মেলে।

অন্যদিকে পিঠের মধ্যে বাঁধা অবস্থায় তার দুধের শিশুও আপন-মনে এদিক ওদিক তাকাতে ব্যস্ত। ওই শিশুর মধ্যেও সেই ভাবে জ্বালাতন দেখা যায়নি। সেও মায়ের পিঠে চড়ে নিজের আনন্দে রয়েছে। জানা গিয়েছে, লক্ষ্মী বারিপদ পৌরসভার একজন চুক্তিভিত্তিক সাফাই কর্মী। এহেন মায়ের কাজ এবং কর্তব্যে কোনরকম খামতি না থাকায় এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

পেশা এবং পরিবারের গুরুদায়িত্ব একসঙ্গে সামলানো এই লক্ষ্মীর বাড়ি ওড়িশার ঝিনেই গ্রামে। জানা যাচ্ছে, তার স্বামীর উপার্জন তেমন ভালো নয়। চারজনের পরিবারে খাবার জন্য খুব কষ্টকর হয় তাদের পক্ষে। তাই তিনি কাজ ছাড়তে পারছেন না। আবার কাজ ছাড়ার ইচ্ছেও নেই। হাসিমুখেই কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।