TCS Stock: আম্বানির রিলায়েন্সকে পদে পদে টেক্কা! ৫ দিনে হাজার হাজার কোটি সম্পত্তি বাড়ল টাটা গ্রুপের

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : ভারতে যে সকল শিল্পপতিরা ধনকুবের হিসাবে পরিচিত তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন মুকেশ আম্বানি, গৌতম আদানি। তবে এই সকল শিল্পপতিদের পাশাপাশি আরও একজন শিল্পপতি রয়েছেন যাকে নিয়ে দেশের মানুষদের শ্রদ্ধা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তিনি হলেন রতন টাটা (Ratan Tata)। রতন টাটা এমন একজন শিল্পপতি যার হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি থাকলেও অবশ্য তাকে ধনকুবের শিল্পপতিদের তালিকায় দেখা যায় না। কিন্তু তিনি তার কাজকর্মে সবসময়ই দাগ রেখে যাচ্ছেন।

স্টক মার্কেটে সম্প্রতি ঝড় ওঠার পরিপ্রেক্ষিতে নামকরা অধিকাংশ স্টকের দাম এখন ঊর্ধ্বমুখী। বিভিন্ন স্টকের মত শেয়ার মার্কেটে এখন বাজার মূল্য বাড়িয়ে চলেছে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ। তবে বাজার মূল্য বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে টাটা গ্রুপও কিন্তু পিছিয়ে নেই। টাটা গ্রুপও দিন দিন তাদের বাজার মূল্য যেভাবে বাড়িয়ে চলেছে তাতে রীতিমতো যে কোন সংস্থাকেই টেক্কা দিতে তৈরি।

৫ জুলাই অর্থাৎ শুক্রবারের হিসেব অনুযায়ী মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের বাজার মূল্য ৩২ হাজার ৬১১.৩৬ কোটি টাকা থেকে বের হয়েছে ২১ লক্ষ ৫১ হাজার ৫৬২.৫৬ কোটি টাকা। এর ফলে তারাই এখন শেয়ার বাজারে দেশের সবচেয়ে মূল্যবান ইন্ডাস্ট্রিজ। তবে এসবের পাশাপাশি টাটা গ্রুপের টাটা কনসালটেন্সি সার্ভিস অর্থাৎ টিসিএস (TCS Stock) স্টকও কিন্তু বাজার কাঁপাচ্ছে। কেননা এই সংস্থা গত সপ্তাহের পাঁচ দিনে ৩৮৮৯৪.৪৪ কোটি টাকা বাজার মূল্য বাড়িয়েছে। শেয়ার বাজারে শীর্ষে থাকা ১০ টি সংস্থার মধ্যে তারাই সবচেয়ে বেশি লাভ করেছে।

আরও পড়ুন 👉 TISS: চাকরি নিয়ে টানাটানির মাঝেই টাটাদের বড় পদক্ষেপ, হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন ১১৫ জন

গত সপ্তাহে শেয়ার বাজারে যে ১০টি সংস্থা সবচেয়ে বেশি লাভের মুখ দেখেছে তার মধ্যে অধিকাংশ সংস্থায় হল আইটি সেক্টরের। টাটা গ্রুপের টিসিএস ছাড়াও বিপুল লাভের মুখ দেখেছে নারায়ণ মূর্তির ইনফোসিস। গত সপ্তাহে শেয়ারবাজারের শীর্ষে থাকা ১০টি সংস্থার মধ্যে আইটি সেক্টরের সংস্থাগুলির বাজার মূল্য বেড়েছে ১.৮৩ লক্ষ কোটি টাকা।

তবে আবার সোমবার বাজার খোলার পর টিসিএসের শেয়ার নিম্নমুখী নজরে আসতে দেখা যাচ্ছে। গত সপ্তাহের শুক্রবার অর্থাৎ ৫ জুলাই বাজার বন্ধ হওয়ার সময় তাদের বাজার মূল্য স্টক প্রতি ছিল ৪০১০ টাকা। সোমবার যখন বাজার খোলার পর সকাল ৯ঃ৩০ মিনিটে বাজার মূল্য বেড়ে হয় ৪০১৯ টাকা। কিন্তু এরপরই ধীরে ধীরে তা কমতে শুরু করে এবং সকাল ১১:৩০ টায় তা নেমে ৪০০০ টাকার নিচে পৌঁছে যায়।