Darjeeling Tourist Spot: দার্জিলিঙে অতি বৃষ্টিতে ধেয়ে এসেছে বিপর্যয়, পর্যটকদের জন্য বন্ধ দুটি ট্যুরিস্ট স্পট

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : বর্ষার আগমন হলেও দক্ষিণবঙ্গে কিন্তু সেই ভাবে বৃষ্টির দেখা মিলছে না। জুলাই মাসের শুরু থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি বাড়লেও কিন্তু এখনো বৃষ্টির ঘাটতি অনেক। তবে দক্ষিণবঙ্গের ঠিক উল্টোটা ঘটে চলেছে উত্তরবঙ্গে। মে মাসের শেষ থেকেই উত্তরবঙ্গে দফায় দফায় বৃষ্টি শুরু হয়, আর সেই বৃষ্টির রেস এখনো কাটেনি। এমনকি এই অতি বৃষ্টির কারণে এবার বিপর্যয় নেমে এসেছে দার্জিলিংয়ের মত ট্যুরিস্ট স্পটেও (Darjeeling Tourist Spot)।

উত্তরবঙ্গে মাঝখানেকের বেশি সময় ধরে অতিবৃষ্টির কারণে রীতিমতো ফুলেফেঁপে উঠেছে তিস্তা। তিস্তার এইভাবে ফুলেফেঁপে ওঠার পাশাপাশি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় ধস নামতেও দেখা যাচ্ছে। এসবের পরিপ্রেক্ষিতেই এখন পর্যটকদের কাছে উত্তরবঙ্গ ভ্রমণ হয়ে উঠেছে প্রতিকূল। উত্তরবঙ্গের শৈল শহর হিসাবে দার্জিলিং অনেকটাই স্বাচ্ছন্দের জায়গা হলেও এবার সেখানেও পরিস্থিতি প্রতিকূল হয়ে দাঁড়িয়েছে।

যেভাবে উত্তরবঙ্গ জুড়ে বৃষ্টির দাপট দেখা যাচ্ছে তাতে প্রথম থেকেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল, দার্জিলিংয়েও বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। আর এবার সেই আশঙ্কায় সত্যি হলো। দার্জিলিঙে এমন পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে অনেকে আবার আইন না মেনে শৈল শহরে একের পর এক বড় বড় বিল্ডিং তৈরি হওয়াকে দায়ী করছেন। অতিবৃষ্টিতে দার্জিলিংয়ে এখন ধস নেমেছে লেবং কার্ট রোড, ধস নেমেছে দার্জিলিং স্টেশনের কাছেও।

আরও পড়ুন 👉 New Flight Service From Andal: আরো সহজে যাওয়া যাবে দার্জিলিং, পুরি, আসাম! অন্ডাল থেকে চালু নয়া পরিষেবা

শৈল শহর হওয়ার কারণে দার্জিলিংয়ে এমনিতেই বৃষ্টির পরিমাণ অনেকটা বেশি থাকে। বর্ষা এলে প্রতি বছরই মোটামুটি ভাবে দার্জিলিংয়ে কোথাও না কোথাও ধস দেখা যায়। তবে এই বছর পরিস্থিতি কিছুটা হলেও বেশি প্রতিকূল হয়ে দাঁড়িয়েছে বলেই দাবি করা হচ্ছে। পরিস্থিতি বেশ কিছুটা প্রতিকূল হওয়ার কারণে এবার দার্জিলিং ঘুরতে যাওয়া পর্যটকদের জন্য দুটি ট্যুরিস্ট স্পট আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

অতিবৃষ্টি এবং পরিস্থিতি প্রতিকূল হওয়ার কারণে দার্জিলিংয়ের যে দুটি স্পট আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে সেই দুটি স্পট হলো রক গার্ডেন এবং গঙ্গামায়া পার্ক। ঘুরতে আসা পর্যটকদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই মূলত জিটিএ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, পরিস্থিতি অনুকূল হওয়ার পর ওই দুটি টুরিস্ট স্পটে পর্যটকদের যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে। এছাড়াও পরিস্থিতি প্রতিকূল হওয়ার কারণে টয়ট্রেন পরিষেবাতেও বাধা আসছে। মূলত শুকনা থেকে কার্শিয়াং যাওয়ার রাস্তায় বিপত্তির কারণে এমন বাধা তৈরি হয়।