শ্রাবণের তৃতীয় সোমবারে হাজার হাজার পুণ্যার্থীদের ঢল বক্রেশ্বরে

হিমাদ্রি মন্ডল : একে তো শ্রাবণ মাস, তার উপর আবার সোমবার। কথায় আছে সোমবার মানেই শিব ঠাকুরের বার। আর সে কারণেই বক্রেশ্বরের উষ্ণ প্রস্রবণের পাশেই থাকা শিব মন্দিরে হাজার হাজার ভক্তের সমাগম ঘটে এই শ্রাবণের সোমবারগুলিতে। শুধু শ্রাবণের সোমবার নয়, বীরভূমের এই বক্রেশ্বর ধাম ৫১ সতীপীঠের ১ পিঠ হওয়ায় প্রায় সারা বছরই পূণ্যার্থীদের সমাগম থাকে।

Source

পূণ্যার্থীদের কথায়, এই সোমবার নিজের গন্তব্যস্থল থেকে পবিত্র জল নিয়ে গিয়ে যদি দেওয়া যায় শিবের মাথায়, তাহলে তিনি সন্তুষ্ট হন এবং যে যা মনস্কামনা করে তা সবই হয় পূর্ণ। কথায় আছে, বাবা ভোলানাথ নাকি কাউকেই ফেরার না, সমস্ত ভক্তের ডাকে সাড়া দেন তিনি।

এদিন বীরভূমের প্রসিদ্ধ স্থান বক্রেশ্বর শিব মন্দিরে প্রায়ই কুড়ি থেকে পঁচিশ হাজার ভক্তের সমাগম ঘটে। রাত্রি প্রায় ২টো থেকে শুরু হয় ভক্তদের আসা। এরপর একটু একটু করে বাড়তে থাকে ভিড়। সকাল হলে তো আর কথাই নেই, তিল ধারণের জায়গা থাকে না।

Source

নিজেদের মনস্কামনা পূরণের আশায় কাঁধে বাঁক আর বাঁকের দুই পাশে লাগানো পিতলের জল ভর্তি ঘটি। যে যার গন্তব্যস্থল থেকে পায়ে হেঁটে প্রবেশ করেন এই মন্দিরে।

বাবার মাথায় জল ঢালতে এসে যেন কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেদিকে কড়া নজর রেখেছে পুলিশ প্রশাসন। যেকোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা রুখতে বীরভূম পুলিশের তরফ থেকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে মন্দির চত্ত্বরে, কড়া নিরাপত্তায় ঘিরে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকা।