বাংলায় বিজেপিকে রুখতে কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলার প্ল্যান প্রশান্ত কিশোরের

নিজস্ব প্রতিবেদন : পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির উত্থান রুখতে কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলার পরিকল্পনা রয়েছে ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের। লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর তৃণমূল শরণাপন্ন হয় প্রশান্ত কিশোরের। তৃণমূলের হয়ে কাজ করতে নেমে প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের সাংগঠনিক বৃদ্ধির দায়িত্ব নেন। আর সেই দায়িত্ব নিয়েই তিনি যে ফর্মুলার প্রয়োগ করছেন তা বিজেপির বিস্তার ফর্মুলার সাযুজ্য বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

Source

সম্প্রতি একটি বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের বিধায়কদের বেশ কতকগুলি নির্দেশ নামা দেন, রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য এহেন নির্দেশ নামা এসেছে প্রশান্ত কিশোরের মাধ্যমেই। এই নির্দেশ নামায় সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, বিধায়কদের নির্দেশ দেওয়া হয় নিজের এলাকায় প্রতি মাসে অন্তত সাত থেকে আট দিন কাটাতে হবে। মন্ত্রীদের ক্ষেত্রেও একই প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি। আর তাহলেই স্থানীয় মানুষদের বিধায়ক এবং মন্ত্রীদের প্রতি আস্থা ফিরবে।

এই প্রশান্ত কিশোর একসময় বিজেপির ভোট কৌশলী ছিলেন। সে সময় তিনি বিজেপিকে পরামর্শ দিয়েছিলেন দেশব্যাপী বিস্তারকে কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার জন্য। আর তার এই পরামর্শ বিজেপি দেশজুড়ে ব্যাপক বিস্তার লাভ করেছিল। এমনকি এখনও বিজেপি দেশজুড়ে বিস্তারক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। জনসংযোগের সেই একই ফর্মুলাকে প্রয়োগ করতে তিনি তৃণমূল নেতৃত্বকে পরামর্শ দেন।

একইসঙ্গে জনসংযোগ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বিধানসভার অনুযায়ী ১৫ জন কর্মীকে বেছে নেওয়ার কথা তৃণমূলকে বলেছেন প্রশান্ত কিশোর। তাদের কাজ হল এলাকার বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করা। ঠিক একই কাজ করে বিজেপি। বিজেপির পান্না প্রমুখরা এই কাজ করে সাধারন মানুষদের পাশে থাকার বার্তা দেয়।

Source

তৃণমূলের হয়ে কাজ করতে নেমে প্রশান্ত কিশোর যে সকল পরামর্শ দিচ্ছেন তাতে রাজনৈতিক মহল বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বিজেপির সাথে অদ্ভুত সামঞ্জস্য খুঁজে পাচ্ছেন। আর এই সামঞ্জস্য থেকেই রাজনৈতিক মহলের অনেকেরই প্রশ্ন, তাহলে কি কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলার কাজ শুরু করেছেন প্রশান্ত কিশোর!