West Bengal Teachers Transfer: অবশেষে স্বস্তি পেলেন রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকারা! হাইকোর্টের নির্দেশে বদলির আবেদন নিয়ে চলবেনা কোন অজুহাত

Madhab Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : নিজেদের সুবিধার জন্য রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের (Teachers) অনেকেই রয়েছেন যারা বাড়ির আশেপাশে বদলি চান। বাড়ির আশেপাশে বদলি চাওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সময় আবার শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শারীরিক পরিস্থিতিও নির্ভর করে। বদলির ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার সুবিধা আনার জন্য চালু করেছে উৎসশ্রী প্রকল্প (Utsashree Prakalpa)। এই প্রকল্পের আওতায় একটি পোর্টালের মাধ্যমে রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকারা নিজেদের বদলির আবেদন (West Bengal Teachers Transfer) জানাতে পারতেন।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিজেদের পছন্দের জায়গায় বদলির জন্য এমন পোর্টাল চালু করার পর থেকে রাজ্যের প্রচুর শিক্ষক-শিক্ষিকা রয়েছেন যারা নিজেদের পছন্দমত স্কুলে বদলি নিয়ে নিয়েছেন। কিন্তু এসবের মধ্যেই ২০২২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ওই পোর্টালে বদলির আবেদন গ্রহণ বন্ধ রয়েছে। এর ফলে বহু শিক্ষক-শিক্ষিকারা নিজেদের বদলি নিয়ে সমস্যায় রয়েছেন।

উৎসশ্রী পোর্টালের মাধ্যমে বদলির আবেদন বন্ধ থাকার ফলে অসুবিধার মুখোমুখি হয়ে এবার এই মামলা কলকাতা হাইকোর্ট পর্যন্ত পৌঁছায়। কলকাতা হাইকোর্টে একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতেও সোমবার শুনানির পর যে নির্দেশ আদালতের তরফ থেকে দেওয়া হয়েছে তাতে রাজ্যের প্রত্যেক শিক্ষক শিক্ষিকাদের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে যারা বর্তমানে কোন না কোন স্কুলে বদলি চাইছেন। কেননা আদালত স্পষ্ট করে দিয়েছে, বদলির আবেদন নিয়ে কোনরকম অজুহাত চলবে না। বদলি সংক্রান্ত মামলায় এমনই নির্দেশ দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা।

আরও পড়ুন 👉 Toto License: হকার উচ্ছেদ অতীত! এবার ফাঁদে টোটো, বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে নতুন লাইসেন্স ব্যবস্থা রাজ্যে

কলকাতা হাইকোর্টে বদলি সংক্রান্ত একটি মামলা করেছিলেন তামান্না বেগম নামে এক শিক্ষিকা। তিনি বীরভূমের বাসিন্দা। তিনি তিন বছর ধরে উত্তর দিনাজপুরের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত। কিন্তু তিনি থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত এবং তার মেয়েও শারীরিক দিক দিয়ে অসুস্থ। এসবের পরিপ্রেক্ষিতেই তিনি উত্তর দিনাজপুর থেকে নিজের জেলার কোন স্কুলে বদলির জন্য পর্ষদের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ হয়ে যায়।

এমন ঘটনার পর ওই শিক্ষিকার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলে সোমবার মামলার শুনানির সময় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা জানিয়ে দেন, অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনের আবেদনও গ্রাহ্য হবে। এমনকি উৎসশ্রী পোর্টাল বন্ধ থাকার যুক্তি দিয়ে কোন শিক্ষক শিক্ষিকার বদলি আটকে রাখা যাবে না। এর পরিপ্রেক্ষিতে সেই সকল শিক্ষক-শিক্ষিকারা হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন যারা এতদিন ধরে বদলির জন্য মুখিয়ে ছিলেন। কেননা তারা এবার অনলাইন পোর্টাল বন্ধ থাকলেও অফলাইনে বদলির আবেদন করতে পারবেন।