৫ ফুটের লক্ষ্মীর ভান্ডারে ২০ ফুটের লক্ষ্মী, অনুপ্রেরণা কোথায় থেকে এলো!

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : প্রতিবছর কোথাও না কোথাও লক্ষ্মী পুজোয় (Laxmi Puja) নানান ধরনের অভিনবত্ব দেখা যায়। এই যেমন গতবছর বীরভূমের পুরন্দরপুর এলাকায় আদিরে পাড়ায় তৈরি করা হয়েছিল ২২ ফুটের লক্ষ্মী প্রতিমা। পুজো উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে সেই সময় দাবি করা হয়েছিল, এর চেয়ে বড় লক্ষ্মী প্রতিমা রাজ্যে আর কোথাও হয়নি। ঠিক সেই রকমই এবার পুরন্দরপুরের এই আদিরে পাড়াতেই হচ্ছে ৫ ফুটের লক্ষ্মীর ভান্ডারের (Lakshmir Bhandar) উপর ২০ ফুটের লক্ষ্মী প্রতিমা।

৫ ফুটের লক্ষ্মীর ভান্ডারের উপর ২০ ফুটের লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরীর এই অনুপ্রেরণা কোথায় থেকে এলো আদিরে পাড়া সার্বজনীন লক্ষ্মীপুজো কমিটির? অনুপ্রেরণা এসেছে মূলত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প থেকেই। পুজো উদ্যোক্তাদের দাবি, এই প্রকল্প চালু হওয়ার আগে তাদের বাড়ির মহিলারা কোন টাকা পেতেন না এখন ৫০০ টাকা বা ১০০০ টাকা করে পান। আর এর জন্যই তারা এই নতুন ধরনের থিম তৈরি করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেন।

জানা যাচ্ছে বীরভূমের এই আদিরে পাড়ায় ৩৬ বছর ধরে লক্ষ্মী পুজোর আয়োজন করা হয়। প্রতিবছর মহা ধুমধামে পুজোর আয়োজন করা হলেও গত বছর থেকেই বড় মূর্তি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ সাত দিন ধরে পুজো করা হয়ে আসছে। যদিও পুজো উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন এই বছর তারা সাত দিনের পরিবর্তে পাঁচ দিন প্রতিমা রাখবেন দূর-দূরান্ত থেকে আসা দর্শনার্থীদের দেখার জন্য।

গত বছর এখানে ২২ ফুটের লক্ষ্মী প্রতিমা হলেও এই বছর লক্ষ্মীর ভান্ডারের উপর লক্ষ্মীর প্রতিমা রাখার ফলে তার সর্বোচ্চ উচ্চতা দাঁড়াচ্ছে ২৫ ফুট। এবারও পুজো উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে দাবি করা হচ্ছে, এমন সুউচ্চ লক্ষ্মী প্রতিমা অন্য কোথাও করা হয় না। পুজো উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, প্রতিমা তৈরি করাতেই তাদের খরচ হচ্ছে প্রায় ৫০ হাজার টাকার কাছাকাছি। প্রতিমা তৈরি করছেন পারুইয়ের অনিল বাগদী নামে এক শিল্পী।

এত বড় মূর্তি তৈরি করার জন্য শিল্পী অনিল বাগদী দুর্গাপুজোর প্রায় ১৫ দিন আগে থেকেই লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরি করার কাজ শুরু করে দেন। এরপর ধাপে ধাপে সেই কাজ এগিয়ে চলে এবং এখন পুজোর আগে সেই প্রতিমা তৈরীর কাজ শেষ পর্যায়ে।