বড় বড় দুটি পরীক্ষায় পাশ, চন্দ্রযান-৩ এর পর আদিত্য এল১ এও বড় সাফল্য ইসরোর!

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : ভারত ইতিমধ্যেই বিশ্বের দরবারেও হয়ে উঠেছে চতুর্থ নজির তৈরি করা দেশ। ভারত এমন নজির তৈরি করেছে চাঁদের বুকে সফলভাবে চন্দ্রযান ৩ (Chandrayaan 3) অবতরণ করানোর পরিপ্রেক্ষিতে। ইসরো ভারতকে এমন সফলতা এনে দিয়ে আরও এক ইতিহাস তৈরি করেছে। আর সেই ইতিহাস হয়েছে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে প্রথম দেশ হিসাবে মহাকাশযান অবতরণ করিয়ে। চন্দ্রাভিযানে এমন সফলতা অর্জনের পর এক দন্ড থেমে থাকে নি ইসরো (ISRO)। তারা আবার নতুন মিশন শুরু করে দিয়েছে আর সেই মিশন হল সূর্য (The Sun)।

সূর্যের L1 কক্ষপথে পৌঁছানোর জন্য ইতিমধ্যেই গত ২ সেপ্টেম্বর পিএসএসভি রকেটে সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়েছে আদিত্য এল১ (Aditya L1)। তবে সফলভাবে উৎক্ষেপণই শেষ কথা নয়। এরপর ধাপে ধাপে সূর্যের দিকে এগিয়ে যাওয়া এই মহাকাশযানকে সব বাধা টপকে পাড়ি দিতে হবে ১৫ লক্ষ কিলোমিটার পথ। আগে চন্দ্রযান ৩ পাড়ি দিয়েছিল মাত্র ৩ লক্ষ ৮৪ হাজার ৪০০ কিলোমিটার পথ। সেই জায়গায় সূর্যের L1 কক্ষপথে পৌঁছানোর চ্যালেঞ্জ অনেক বেশি।

চাঁদে যাওয়ার ক্ষেত্রে ইসরো চন্দ্রযান ৩ এর পিছনে খরচ করেছিল ৬১৫ কোটি টাকা। সেই জায়গায় অবশ্য আদিত্য এল১ এর পিছনে খরচ করছে মাত্র ৪০০ কোটি টাকা। পথ বেশি হলেও খরচ অনেক কমে গিয়েছে। তবে অনেক পরীক্ষায় সফল হওয়ার পরই সূর্যের এল১ কক্ষপথে পৌঁছাবে আদিত্য এল১। এর জন্য সময় নেবে ১২৭ দিন।

তবে এইসব চ্যালেঞ্জের সামনেই এবার ইসরোর তরফ থেকে নতুন একটি আপডেট দেওয়া হল এবং সেই আপডেট অনুযায়ী ইতিমধ্যেই পরপর দুটি বড় পরীক্ষায় পাস করল আদিত্য এল১। উৎক্ষেপণের পর আদিত্য এল১ প্রথম কক্ষপথ পরিবর্তন করে ৩ সেপ্টেম্বর অর্থাৎ রবিবার সকাল ১১ টা ৩০ মিনিটে। প্রথম পরীক্ষায় পাশ করার পর তার দ্বিতীয় পরীক্ষা ছিল ৫ সেপ্টেম্বর ভোর তিনটে নাগাদ। এই পরীক্ষাতেও সফলভাবে পাশ করেছে আদিত্য এল১।

রবিবার প্রথম কক্ষপথ পরিবর্তন করার পর মঙ্গলবার সফলভাবে দ্বিতীয় কক্ষপথ পরিবর্তন করে আদিত্য এল১। পরপর দুটি পরীক্ষায় পাশ করার বিষয়ে ইসরোর তরফ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানানো হয়েছে। এর পাশাপাশি জানানো হয়েছে পরবর্তী পরীক্ষা কবে রয়েছে। পরবর্তী পরীক্ষা প্রসঙ্গে ইসরো জানিয়েছে, ১০ সেপ্টেম্বর রাত্রি ২:৩০ নাগাদ তৃতীয় পরীক্ষার মুখোমুখি হবে আদিত্য এল১। এর পাশাপাশি ইসরোর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, বর্তমানে এই মহাকাশযান ২৮২ কিমি x ৪০২২৫ কিমি কক্ষপথে অবস্থান করছে।