Income tax new rules: বদলে যাচ্ছে Tax ব্যবস্থা! ১ অক্টোবর থেকে নতুন নিয়ম আনছে মোদি সরকার

Prosun Kanti Das

Published on:

The central government has introduced new rules in the tax system: ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ১লা অক্টোবর, ২০২৩ থেকে ট্যাক্স কলেকশন অ্যাট সোর্স (টিসিএস)-এর নতুন হার কার্যকর করার ঘোষণা দিয়েছে (Income tax new rules)। এই নতুন হারগুলি আন্তর্জাতিক ভ্রমণ, বিদেশী স্টক, মিউচুয়াল ফান্ড বা ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ, উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে যাওয়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। সেই কারণেই জেনে নিতে হবে আগামী মাস থেকে আপনাকে কত টিসিএস দিতে হবে।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার লিবেরালাইসড রেমিট্যান্স স্কিম (LRS) এর অধীনে, আপনি একটি আর্থিক বছরে ২৫০,০০০ মার্কিন ডলার পর্যন্ত রেমিট বা দেশের বাইরে পাঠাতে পারেন। আন্তর্জাতিক ভ্রমণের ক্ষেত্রে ৭ লাখ টাকার বেশি খরচ হলে ৫% টিসিএস। নতুন নিয়মের আওতায় (Income tax new rules)বিদেশী স্টক, মিউচুয়াল ফান্ড বা ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ করলে ২০% টিসিএস। উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে যেতে ৭ লাখ টাকার বেশি খরচ হলে ২০% টিসিএস। আবার শিক্ষাগত উদ্দেশ্যে ব্যয় করা ৭ লাখ টাকার নিচে রেমিট্যান্সে কোনও টিসিএস নেই।

যদি বিদেশী শিক্ষার জন্য ৭ লাখ টাকা ব্যয় করা হয় তার উপর রেমিট্যান্স একটি অনুমোদিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে যে ঋণ পাওয়া যাবে তাতেই ০.৫ শতাংশ হারে ট্যাক্স কলেকশন অ্যাট সোর্স (টিসিএস) আকর্ষণ করবে। পাশাপাশি নয়া নিয়মে (Income tax new rules) ৭ লাখ টাকার উপরে রেমিট্যান্স শিক্ষামূলক উদ্দেশ্যে ব্যয় করা ঋণের মাধ্যমে প্রাপ্ত না হলে, আপনাকে ৫ শতাংশ টিসিএস দিতে হবে।

১লা অক্টোবর, ২০২৩ সাল থেকে যদি বিদেশে চিকিৎসার জন্য আপনার খরচ ৭ লাখ টাকা অতিক্রম করে তাহলে আপনাকে ৫ শতাংশ হারে টিসিএস দিতে হবে। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, শিক্ষা ও চিকিৎসা সংক্রান্ত ভ্রমণ এবং আনুষঙ্গিক খরচের জন্য যে কোনো রেমিট্যান্স শিক্ষা ও চিকিৎসার জন্য প্রযোজ্য হারে টিসিএস দিতে হবে।

এই নতুন (Income tax new rules) হারগুলির বেশ কয়েকটি প্রভাব পড়বে দেশের অর্থনীতিতে। প্রথমত, এটি আন্তর্জাতিক ভ্রমণ, বিদেশী বিনিয়োগ এবং উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে যাওয়ার খরচ বাড়িয়ে তুলবে। দ্বিতীয়ত, এটি সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধিতে অবদান রাখবে। তৃতীয়ত, এটি ভারতীয়দের আন্তর্জাতিক লেনদেনকে কিছুটা হলেও হ্রাস করতে পারে। ট্যাক্স কলেকশন অ্যাট সোর্স (টিসিএস)-এর নতুন হারগুলি ভারতের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে। এই হারগুলির প্রভাবগুলি এখনও পুরোপুরি বোঝা যায়নি, তবে এটি আন্তর্জাতিক ব্যবসা, বিনিয়োগ এবং ভ্রমণকে প্রভাবিত করার সম্ভাবনা রয়েছে।