Bangladesh Vote Counting: ৮ ঘন্টার ভোট গুনতে কেন লাগে ৪৮ ঘন্টা! বাংলাদেশের ভোট গণনা হয় কোন পদ্ধতিতে

নিজস্ব প্রতিবেদন : বাংলা সংবাদ মাধ্যম গত কয়েকদিন ধরেই বাংলাদেশের ভোট (Bangladesh Election 2024) নিয়ে পড়ে রয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই বাংলাদেশের ভোটের বিভিন্ন সংবাদ শিরোনামে আসতে দেখা যাচ্ছে। রবিবার বাংলাদেশে ভোট গ্রহণ হয় আর তারপরেই শুরু হয়েছে গণনা। তবে প্রশ্ন হল, মাত্র ৮ ঘণ্টার ভোট গ্রহণের পর সেই ভোট গণনা (Bangladesh Vote Counting) করতে কেন ৪৮ ঘণ্টা সময় লাগে? কোন পদ্ধতিতে বাংলাদেশে ভোট গণনা করা হয়?

বাংলাদেশে মোট ২৯৯টি কেন্দ্র রয়েছে। এই সমস্ত কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হয় ব্যালটে। ভারতের মতো ইভিএম মেশিন ভোটের ব্যবহার না করার কারণে ভোটগ্রহণ এবং ভোট গণনার ক্ষেত্রে সময় লাগে বেশি। কিন্তু তা বলে ৪৮ ঘন্টা ভোট গণনার জন্য সময় লাগাটা অনেক বেশি। এই ৪৮ ঘন্টা সময় নেওয়ার পিছনে অন্য কারণ রয়েছে। সেই কারণগুলি হলো বাংলাদেশের ভোট গ্রহণ এবং ভোট গণনার পদ্ধতি।

আসলে বাংলাদেশে ভোট গ্রহণ হওয়ার পর সেই ভোট গ্রহণ কেন্দ্রেই প্রিজাইডিং অফিসাররা ভোট গণনা করে ফল প্রকাশের কাজ শুরু করে দেন। প্রিসাইডিং অফিসার ব্যালট গণনা করে যে ফলাফল পান সেই ফলাফল পাঠিয়ে দেন রিটার্নিং অফিসারের কাছে। ভোট গণনা কেন্দ্র থেকে পাওয়া ফল রিটার্নিং অফিসার আবার পাঠান নির্বাচন কমিশনের কাছে। নির্বাচন কমিশন সেই ফল ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে থাকে।

আরও পড়ুন 👉 India Alliance Face: কে হবেন বিরোধী জোটের মুখ! মানুষ কাকে চাইছেন! কত ভোট পেলেন মমতা

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সূত্রে যা জানা গিয়েছে, তাতে ভোটগ্রহণ হয়ে যাওয়ার পর ওই কেন্দ্রের একটি নির্ধারিত কক্ষে ব্যালট বক্সগুলি আনা হয়। এরপর সেখানে প্রার্থীর এজেন্টদের সামনে ধাপে ধাপে ব্যালট বক্সগুলি খুলে ব্যালট পেপার বের করা হয়। তারপর শুরু হয় গণনা এবং গণনায় উঠে আসা ফলাফল প্রতিটি দলের এজেন্টদের স্বাক্ষর নিয়ে তা পাঠিয়ে দেওয়া হয় রিটার্নিং অফিসারের কাছে। সেটি পরে আবার চলে যায় নির্বাচনে কমিশনের কাছে।

ভোটগ্রহণের পর ভোট গণনার যে ফলাফল তা মোটামুটি কেন্দ্রগুলি থেকেই সকলে জানতে পেরে যান। তবে এরপরেও আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয়। তবে গণনা শেষ হয়ে যাওয়ার পর সেগুলি সংরক্ষণ করার জন্য একটি নির্দিষ্ট কক্ষ করা থাকে। সেই কন্ট্রোল রুমেই সমস্ত ব্যালট পেপার থেকে নথি সংরক্ষণ করে রাখা হয়। গণপ্রতিনিধিত্ব সংশোধন আইন অনুযায়ী এইসব নথি এক বছরের জন্য সংরক্ষণ করার নিয়ম রয়েছে। এই সকল বিভিন্ন পথ ফিরিয়ে আসার কারণেই বাংলাদেশের ভোট গণনা করতে ৪৮ ঘন্টা সময় লাগে।