LIC: LIC-র কাজের নিয়মে বড় বদল! এবার বাড়িতেই বসেই অনায়াসে হবে এসব কাজ

LIC is now giving people an opportunity to earn by working from home: পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মতো ভারতও উন্নতশীল দেশে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে ডিজিটাল ভারতে সব কোম্পানিই ডিজিটাল হওয়ার পথে। আর সেই যাত্রায় পিছিয়ে নেই ইন্স্যুরেন্স জায়ান্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স কর্পোরেশন বা এলআইসি-ও (LIC)। কোম্পানি সেই কারণেই একটি ফিনটেক ইউনিট গঠনের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। খোদ এলআইসি চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মোহান্তি সংবাদসংস্থাকে দেওয়া তার একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, এলআইসি একটি সম্পূর্ণ ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন প্রজেক্ট ডিজিটাল ইনোভেশন অ্যান্ড ভ্যালু এনহ্যান্সমেন্ট বা Digital Innovation and Value Enhancement (DIVE) চালু করেছে। প্রজেক্ট এর জন্য ইতিমধ্যেই একজন কনসালটেন্টকেও নিয়োগ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন যে, প্রজেক্ট ডাইভের মাধ্যমে গড়ে তোলা হবে এমন একটি ডিজিটাল উদ্যোগ যা স্টেকহোল্ডার, গ্রাহক, মধ্যস্থতাকারী সকলকেই সহায়তা করবে। এছাড়াও তিনি জানান, এলআইসি (LIC) তার নিজস্ব এজেন্টদের মাধ্যমে প্রচুর নতুন গ্রাহক পায়। যদি একবার ডিজিটালি DIVE পুরোপুরি চালু হয় তাহলে একাধিক ক্ষেত্রে পরিবর্তন দেখা যাবে।

সেটেলমেন্ট, লোন সহ একাধিক পরিষেবা শুধু একটি ক্লিকের মাধ্যমেই ধরা দেবে গ্রাহকদের সামনে। এই সুবিধার ফলে গ্রাহকদের আর অফিসে আসতে হবেনা, ঘরে বসেই সকলে নিজস্ব মোবাইলের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলি অ্যাক্সেস করতে পারবে। ফিনটেকের উপর ফোকাস করাই কোম্পানির (LIC) মূল উদ্দেশ্য। ব্যবসার বিস্তার ঘটানোর জন্য এর ব্যবহারও করা হবে।

এলআইসি এখনো চিন্তা করছে একটি নিজস্ব ফিনটেক অপশন করার জন্য। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার চেষ্টাও করছে। তবে এ প্রসঙ্গে বিস্তারিত কোনো মন্তব্য করতে চাইছেন না তিনি। কারণ বিষয়টি সবেমাত্র শুরুর ভাবনা চিন্তায় রয়েছে, এখনই এ বিষয়ে মন্তব্য করা সঠিক হবে না। চলতি বছরে এলআইসি (LIC) নিজেদের প্রোডাক্টসের বিস্তার ঘটানোর জন্য মোট তিনটি ফিনটেক সংস্থাকে কর্পোরেট এজেন্ট হিসাবে নিযুক্ত করেছে৷ পাশাপাশি এলআইসি আগামী মাসে তিন থেকে চারটি নতুন পণ্য চালু করার পরিকল্পনা করেছে।।

এলআইসির চেয়ারম্যান এর বক্তব্য অনুযায়ী, ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এলআইসি একটি নতুন পরিষেবা চালু করতে চলেছে। বাজারে সারা ফেলতে এটি একেবারে আদর্শ। নতুন পরিষেবার কিছু বৈশিষ্ট্যর বিষয়ে চেয়ারম্যান বলেন, বিনিয়োগকারীরা পলিসিতে গ্যারান্টেড রিটার্ন পাবেন। পাশাপাশি পলিসি ম্যাচিওর হওয়ার পরেও পলিসিধারী যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন বীমাকৃত টাকার ১০ শতাংশ পাবেন। এলআইসি চেয়ারম্যান খুবই আশাবাদী যে এই পলিসি ভালোভাবেই জনপ্রিয়তা লাভ করতে পারবে। এছাড়াও, পলিসিটিতে ঋণের সুবিধা ও ম্যাচিওর হওয়ার আগেই টাকা তোলার মতো অপশনের সুবিধা পাওয়া যাবে।