বিজ্ঞাপন

এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে যাওয়ার ই-পাস দরকার, রইলো পাওয়ার পদ্ধতি

বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদন : তৃতীয় দফার লকডাউন অবধি বন্ধ ছিল সকল দোকানপাট। এতদিন এই দীর্ঘ লকডাউনে দোকানপাট সকল কিছু বন্ধ থাকার কারণে সরকারের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনেক ক্ষতি হয়েছে। তাই চতুর্থ দফার লকডাউন যখন মেয়াদ বাড়িয়ে ৩১শে মে পর্যন্ত করা হলো, তখন সরকার অনেক ক্ষেত্রে নিয়ম কানুনে শিথিলতা এনেছে।

বিজ্ঞাপন

চতুর্থ দফার লকডাউনে যদিও নাইট কার্ফু জারি করা হয়েছে, তবে এই লকডাউনে অনেক দোকানদার তাদের দোকানপাট খোলা রাখতে পারবেন এমন নির্দেশিকাও জারি করা হয়েছে। এমন কি ভিন রাজ্যে আটকে পড়া কোনো মানুষের বাড়িতে যদি আপৎকালীন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় তাহলে সে ক্ষেত্রে সেই মানুষটি নিজের রাজ্যে নিজের বাড়িতে ফিরেও আসতে পারবেন। তবে সে ক্ষেত্রে ই-পাস লাগবে।

বিজ্ঞাপন

ই-পাস পাওয়ার পদ্ধতি

ই-পাসের পাওয়ার জন্য আবেদন করতে হলে আপনাকে যেতে সরকারি ওয়েবসাইট http://serviceonline.gov.in/epass/ -এ যেতে হবে। সেখানে Apply for e-pass অপশনে ক্লিক করে আপনার রাজ্য বেছে নিতে হবে। তারপর উপযুক্ত তথ্য দিয়ে আবেদন করতে পারবেন। আপনার যাবেন কতদূর তাও আপনি ট্র্যাক করতে পারেন এই সাইটেই। তারজন্য আপনাকে ক্লিক করতে হবে ‘Track your Application’ অপশনে।

এখন আপনি যে ক্যাটাগরিতে পড়েন সেই অনুযায়ী লিঙ্কটি পছন্দ করুন। এরপর একটি পেজ ওপেন হবে এখানে আপনাকে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিতে হবে আর সেই সাথে আপনাকে দিয়ে দিতে হবে আপনার ফোন নম্বর। এই ফোন নম্বরে এরপর একটি ভেরিফিকেশন ওটিপি যাবে। সকল তথ্য জমা হওয়ার পর আপনার আবেদনপত্রটি সাবমিট হবে। আবেদনপত্রটি এরপর খতিয়ে দেখবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই সর্বশেষ সিদ্ধান্ত হিসেবে গৃহীত হবে।

তবে আপাতত শুধুমাত্র ১৭ টি রাজ্যের ক্ষেত্রে এখন এই ই-পাস মিলছে। এই ১৭ টি রাজ্য হল অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, হরিয়ানা, বিহার, অন্ধ্রপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু-কাশ্মীর, কেরল, কর্ণাটক, লাক্ষাদ্বীপ, লাদাখ, মেঘালয়, মহারাষ্ট্র, পন্ডিচেরি, ওড়িশা, নাগাল্যান্ড, সিকিম, উত্তর প্রদেশ ও ত্রিপুরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই ই-পাসের জন্য ৩৩ লাখেরও বেশি মানুষ আবেদন করে ফেলেছেন। এই ৩৩ লাখের মধ্যে ১১ লাখ মানুষকে ই-পাস দেওয়া হয়েছে। ১১ লাখের বেশি আবেদন বাতিল হয়ে গেছে।