পুজোর সময় ট্রেন ভ্রমণে চিন্তা নেই! খাবারে বদল আনল রেল

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : দেশজুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছে উৎসবের মরশুম। কোথাও দুর্গাপুজো তো আবার কোথাও অন্য উৎসব। উৎসব যাই হোক না কেন উৎসবের আনন্দ কিন্তু সবার কাছেই সমান। এদিকে উৎসবের মরসুমেও ভ্রমণ থেকে শুরু করে অন্যান্য বিভিন্ন কাজে দেশের মানুষকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা যেতে হয়। দেশের এই সকল মানুষদের কথা মাথায় রেখে এবার ভারতীয় রেলের (Indian Railways) তরফ থেকে কম খরচে স্পেশাল মেনু চালু করা হলো।

আসলে পুজোর এই দিনগুলিতে দেখা যায় যাত্রীরা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করলেও পুজোর বিভিন্ন রীতিনীতি পালন করেন। এক্ষেত্রে তাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হয় খাবার নিয়ে। অনেকেই রয়েছেন যারা পুজোর সময় আমিষ খাবার খান না। কিন্তু ট্রেন ভ্রমণের সময় নিরামিষ খাবার না পেয়ে না খেয়েই সফর করতে হয়। এই ধরনের যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে এবার খাবারে স্পেশাল মেনু যোগ করা হয়েছে রেলের তরফ থেকে।

IRCTC-র তরফ থেকে এই ধরনের খাবার দেওয়ার জন্য যে পরিষেবা চালু করা হয়েছে তার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ব্রত কা খানা’। এই পরিষেবার মধ্য দিয়ে যাত্রীদের জন্য সাত্ত্বিক খাবারের বিভিন্ন বিকল্প রাখা হয়েছে। সাত্ত্বিক বিভিন্ন খাবার থাকার ফলে যে সকল যাত্রীরা পুজোর সময় উপবাস সহ বিভিন্ন রীতিনীতি পালন করে থাকেন তারা উপকৃত হবেন।

রেলের এই পরিষেবার মধ্য দিয়ে সাত্ত্বিক খাবারের যা যা পাওয়া যাবে তা হলো সাবুদানা, কুট্টু কা আটা সহ অন্যান্য বিভিন্ন খাবার। এই পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে চিহ্নিত করা হয়েছে নবরাত্রি উদযাপন এবং উপবাসের সময়কালকে। গত ১৫ অক্টোবর থেকে এই ধরনের খাবার দেওয়া শুরু হয়েছে এবং তা চলবে আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত।

সে সকল যাত্রীরা এই ধরনের খাবার নিতে ইচ্ছুক তারা সহজেই যাতে খাবার অর্ডার দিতে পারেন তার জন্য ব্যবস্থা রাখা হয়েছে IRCTC-র ওয়েবসাইটে। যাত্রীরা চাইলে খাবার অর্ডার দেওয়ার সময়ই পেমেন্ট করতে পারেন অথবা খাবার ডেলিভারি নেওয়ার সময়ও পেমেন্ট করতে পারেন। এই ধরনের খাবার অর্ডার করার ক্ষেত্রে যাত্রীদের কাছে বৈধ পিএনআর নম্বর থাকতে হবে। যাত্রার দু’ঘণ্টা আগে খাবার অর্ডার করা যাবে।