India-Maldives Agreement: এতকিছু হয়েও লজ্জা নেই! ফের প্যাঁচ দেখানো শুরু মালদ্বীপের, মহা ফাঁপড়ে ভারত

Prosun Kanti Das

Published on:

Maldives wants to put India in trouble with the old agreement: একদিকে মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মইজ্জুর সাথে সাক্ষাতে মজেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অপরদিকে সেই দেশই ভারতকে প্যাঁচে ফেলতে নিল বড়সড় কূটনৈতিক পদক্ষেপ। নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণের পর যখন মইজ্জুর সাথে নৈশভোজ সভাতে চলছে সাক্ষাৎ পর্ব তখনই মালদ্বীপে ওঠে সার্বভৌমত্ব নিয়ে উদ্বেগ। মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে ভারতের সঙ্গে মালদ্বীপের পূর্বে করা ৩ চুক্তি (India-Maldives Agreement)।

প্রসঙ্গত, গত ৪ই জুন ফল প্রকাশিত হয়েছে লোকসভা নির্বাচনের। সেই অনুযায়ী নতুন করে সরকার গঠিত হয়েছে দিল্লিতে। তৃতীয় বারের মতো আবারো প্রধানমন্ত্রী পদে বসেছেন নরেন্দ্র মোদি। আর সেই সরকার গঠনের নিয়ম অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী পদের আসন গ্রহণ করার আগে শপথ গ্রহণ করতে হয় দল নেতাকে। আর সেই শপথ গ্রহণেই আমন্ত্রিত হয়ে এসেছেন মালদ্বীপ রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মইজ্জু। এই আবহেই ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করল মালদ্বীপ। ৩ চুক্তি পর্যালোচনা করার কথা বলে প্যাঁচে ফেললো ভারতকে। কি সেই ৩ চুক্তি?

মালদ্বীপে পূর্বের যে তিন চুক্তি (India-Maldives Agreement) নিয়ে নয়া ফন্দি আঁটা হচ্ছে তা হল উথুরু থিলা ফালহু নৌ ঘাঁটি উন্নয়ন চুক্তি, ডর্নিয়ার বিমান উপহার দেওয়ার বিষয়ক চুক্তি, যা ভারত মালদ্বীপকে দেবে এবং হাইড্রোগ্রাফিক সমীক্ষা সংক্রান্ত একটি ২০১৯ চুক্তি। মূলত দুই দেশের সম্পর্কের মাঝে তিক্ততা আনতে এই ৩ চুক্তির ব্যাপক পর্যালোচনা উক্তি মালদ্বীপের।

আরও পড়ুন 👉 Israel-Maldives Relation: আরও এক দেশকে শত্রু বানালো মালদ্বীপ, ভারত দিল বড় বার্তা

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি, বর্তমানে মইজ্জু সরকারের আমলে এই তিন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়নি। মইজ্জুর পূর্বে মালদ্বীপের প্রধান সরকার ইব্রাহিম সোলিহ ভারতপন্থী নেতার আমলে ভারতের সাথে মালদ্বীপের এই তিন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। যা মূলত নৌসেনা ঘাঁটি গড়া নিয়ে তৈরি হয়েছিল। যে যুক্তির সাথে জড়িয়ে রয়েছে মালদ্বীপের সার্বভৌমত্ব। উক্তি মালদ্বীপ নেতাদের। তাই বর্তমানে মালদ্বীপ সংসদে জোরালো আওয়াজ উঠেছে এই তিন চুক্তি পর্যালোচনা করা নিয়ে। মালদ্বীপের চীনপন্থী রাষ্ট্রপতি হিসেবে মইজ্জুকে অনেকেই এই বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে শুরু করেছেন।

বিশেষত মালদ্বীপ সংসদে এই চুক্তি (India-Maldives Agreement) পর্যালোচনার উপর জোর দেন মইজ্জু পার্টি সংসদ আহমেদ আজান। তাঁর উক্তি, মালদ্বীপ প্রাক্তন সরকারের সাথে ভারতের যে চুক্তি হয়েছে সেই চুক্তি প্রাথমিকভাবে ব্যাপক পর্যালোচনা করা দরকার। বিশেষ করে উপরে উল্লেখিত তিন চুক্তি পর্যালোচনার উপর জোর দিয়েছেন আহমেদ আজান। তবে মালদ্বীপের এই সাওয়াল নিয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি দিল্লি। বর্তমানে শপথ গ্রহণ এবং ভিআইপি মন্ত্রীদের সাথে বৈঠক করতে ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তবে দুই দেশের এই কূটনৈতিক পদক্ষেপ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।