Petrol: গাড়িতে এত পেট্রোল ঢালছেন কিন্তু জানেন না এর আবিষ্কারকের নাম! না জানাটাই স্বাভাবিক

Know the name of the person who invented Petrol: পেট্রোলের আবিষ্কার কিন্তু প্রাচীনকালে হয়নি তখন এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাওয়ার জন্য পায়ে হেঁটেই যাতায়াত করত মানুষ। বহুদূরে যাত্রার ক্ষেত্রেও পায়ে হাঁটায় ছিল সবথেকে বড় সম্বল। পরে অবশ্য চাকার আবিষ্কার হওয়ার পর বিভিন্ন ধরনের যানবাহন এবং জলপথে নৌকার প্রচলন ঘটেছিল। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমান পরিবহন ব্যবস্থায় এসেছে বিরাট পরিবর্তন। জ্বালানির উপর ভরসা করে আমরা বহু দূরে যাত্রা করতে পারি। বর্তমানে অধিকাংশ গাড়ির ক্ষেত্রেই পেট্রোলের (Petrol) ব্যবহার পরিলক্ষিত হয়। কিন্তু এই পেট্রোলের ব্যবহার কোথা থেকে শুরু হল সে সম্পর্কে অনেকেই হয়তো জানেন না।

প্রশ্নটা প্রথমে শুনতে অবাক লাগলেও এর সঠিক উত্তর কিন্তু অনেকেই দিতে পারেনি। পেট্রোল কিন্তু সরাসরি প্রকৃতির থেকে পাওয়া যায় না। এটি অপরিশোধিত তেল থেকে পৃথক করা হয়। পেট্রোল (Petrol) তৈরি হয় অপরিশোধিত তেল উচ্চ চাপ এবং তাপমাত্রায় উদ্ভিদ এবং প্রাণীর অবশিষ্টাংশের কয়েক মিলিয়ন বছর ধরে পচে যাওয়ার পরে। যানবাহনে এটি ব্যবহৃত হওয়ার বহু বছর আগে, অপরিশোধিত তেল আলো এবং ওষুধে ব্যবহৃত হত।

প্রথম পেট্রোলের ব্যবহার কোন দেশে প্রথম হয়েছিল আজকের প্রতিবেদনে তার উত্তর আপনি আশা করি পেয়ে যাবেন। ৩৪৭ AD-তে চিনে প্রথম কূপ খনন করা হয়েছিল। সেখান থেকে উত্তোলন করার পর পাওয়া গেছে তেল। এরপরে, ৬০০ BC-তে, ব্যাবিলনীয়রা এক ধরণের অপরিশোধিত তেল ব্যবহার করে একটি প্রাচীর তৈরি করে। পরবর্তীকালে ১০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে, পার্সিয়ানরা আলো এবং কোনোকিছু গরম করার জন্য অপরিচিত তেলের ব্যবহার করত। আধুনিক যুগে এই অপরিচিত তেল থেকে পেট্রোল (Petrol) আলাদা করে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন যানবাহনে।

প্রথম বাণিজ্যিক তেলের কূপ খনন করেন ১৮৫৯ সালে পেনসিলভেনিয়ার বসবাসকারী এডউইন ড্রেক। সেখান থেকে আলাদা করে নেওয়া হয় পেট্রোল। এরপরই পেনসিলভেনিয়ার পর এই প্রথার প্রচলন দেখা দেয় আমেরিকা, রাশিয়া, কানাডা, মেক্সিকো, ভেনিজুয়েলা এবং ইরানে। অপরিশোধিত তেল থেকে উত্তোলন করা হয় কেরোসিন, পেট্রল, ডিজেল এবং জেট ফুয়েল। স্যামুয়েল কিয়ার পিটসবার্গে প্রথম তেল শোধনাগার নির্মাণ করেন। ইতিহাসের পাতায় এটি একটি স্মরণীয় কাজ।

শোধনাগারে কি করা হতো এই অপরিশরিতে তেল দিয়ে? বিভিন্ন তাপমাত্রায় অপরিশোধিত তেল থেকে একাধিক জিনিস পাওয়া যায়। সবথেকে মূল্যবান ধাতু হিসেবে বিবেচিত হয় গ্যাসলিন। প্রথম চলমান গাড়ির আবিষ্কার হয়েছিল ১৮৮৫ সালে। এই ধরনের গাড়ির ব্যবহার দেখা যেত জার্মানিতে। এরপরে, বিপ্লব আসে এবং ১৯২০ সাল নাগাদ আমেরিকাতেই রাস্তায় ৯ মিলিয়নেরও বেশি গাড়ি দেখা যায়।