NDA Alliance Demands: কেউ চাইছেন অধ্যক্ষ, কেউ চাইছেন ৪-৫ মন্ত্রী! NDA শিবির এখন শুধুই ‘চাই চাই’

Madhab Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : এখনো পর্যন্ত যা ঠিকঠাক রয়েছে তাতে তৃতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু ২০১৪ এবং ২০১৯ সালের তুলনায় এবার সরকার গঠন এবং টিকিয়ে রাখার মধ্যে অনেক ফারাক তৈরি হয়েছে। এনডিএ শরিকদের মধ্যে এখন কিংমেকার চন্দ্রবাবু নাইডু ও নিতীশ কুমার। এছাড়াও রয়েছে অন্যান্য ছোটখাটো সিট পাওয়া রাজনৈতিক দলগুলিও।

২০২৪ সালে যেহেতু বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি, তাই এই সকল শরীর দলগুলির মন রেখেই সরকার গঠন করতে হবে এবং সরকার টিকিয়ে রাখতে হবে। বুধবার সরকার গঠন নিয়ে এনডিএ শিবিরের একটি বৈঠক হয়েছে। যে বৈঠকে সকলেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন। তবে এর জন্য অবশ্যই তাদের নিজস্ব নিজস্ব দাবি (NDA Alliance Demands) রয়েছে। কেননা নিঃশর্তে কেউ তো আর কোন শিবিরকে সাপোর্ট করবে না বা পাশে থাকবে না।

এনডিএ শিবিরের কিংমেকার চন্দ্রবাবু নাইডু এবং নীতিশ কুমার ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলি কি কি দাবি রেখেছে সেই বিষয়টি গোপন রাখা হলেও সূত্র মারফত নানান প্রসঙ্গ সামনে আসছে। দাবি দেওয়া নিয়ে সূত্র মারফত যা জানা যাচ্ছে তাতে কেউ চাইছেন অধ্যক্ষের পদ, কেউ আবার চার থেকে পাঁচটি মন্ত্রিত্ব। কেউ কেউ আবার একটি সিট জিতেও মন্ত্রিত্বের দাবি তুলছেন। কেননা তাদের কাছে এর থেকে বড় সুযোগ আর কিছু হবে না বলেই তারা মনে করছেন।

আরও পড়ুন 👉 Modi Naidu Viral Video: কোনভাবেই পাশে বসতে চাইছেন না নাইডু, হাত ধরে টানাটানি মোদির, ভিডিও দেখে থ নেটিজেনরা

সূত্র মারফত যা জানা যাচ্ছে তাতে এনডিএ শিবিরের দ্বিতীয় শক্তিশালী দল টিডিপি প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু তার দলের জন্য লোকসভার অধ্যক্ষের পদ এবং চারটি মন্ত্রিত্ব চেয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে গ্রামোন্নয়ন ও সড়ক পরিবহন। এছাড়াও দুটি দপ্তরের প্রতিমন্ত্রীত্ব চেয়েছেন তিনি। অন্যদিকে নীতিশ কুমারও কম কিছু চাইছেন না বলেই জানা যাচ্ছে সূত্র মারফত। তার প্রথম দাবি হলো, ২০২৬ সাল পর্যন্ত তার দলকে এবং তাকে কোনভাবেই বিহারে সরকার চালানোর জন্য ডিস্টার্ব করলে হবে না। তিনি যেন ২০২৬ পর্যন্ত নির্বিঘ্নে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী থাকেন।

এখানেই শেষ নয়, এর পাশাপাশি তিনি আবার চন্দ্রবাবু নাইডুর মতই নিজের দলের কাউকে লোকসভার অধ্যক্ষ করতে চাইছেন। এর পাশাপাশি এক দুজন পূর্ণ মন্ত্রী ও অন্ততপক্ষে দুজন প্রতিমন্ত্রীর দাবি তুলেছেন তিনি। তার নজর রয়েছে রেল, গ্রামোন্নয়ন ও জলশক্তি মন্ত্রকের দিকে। এছাড়াও নীতিশ কুমার এবং তার দলের পছন্দের তালিকায় রয়েছে পরিবহন ও কৃষি। চন্দ্রবাবু নাইডু এবং নীতিশ কুমারকে বাদ দিয়ে যদি চিরাগ পাসওয়ানের দিকে নজর রাখা যায় তাহলে কিন্তু তিনিও এবার সরকার গঠনের ক্ষেত্রে অন্যতম খিলাড়ি। কেননা তার দল পাঁচটি কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পাঁচটিতেই জয়যুক্ত হয়েছে। তিনি এবার মন্ত্রিত্ব চান বলেই জানা যাচ্ছে। এছাড়াও একজন সাংসদ নিয়ে জোটে থাকা হামও মন্ত্রিত্বের দাবি তুলেছে। এখানেই শেষ নয়, এর পাশাপাশি আবার নিতিশ কুমারের দলের অনেকেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে অমিত শাহকে চাইছেন না বলেও জানা যাচ্ছে সূত্র মারফৎ।