Vande Bharat Sleeper Latest Update: রাজধানী এক্সপ্রেস অতীত, এবার দু’ঘন্টা আগেই গন্তব্যের স্টেশন আসছে বন্দে ভারতের নতুন ভার্সন

নিজস্ব প্রতিবেদন : ভারতীয় রেলকে (Indian Railways) পশ্চিমের দেশগুলির রেল পরিষেবার মত উন্নত রেল পরিষেবায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। এই সকল প্রচেষ্টার ফলস্বরূপ ভারতীয়রা পেয়েছেন বন্দে ভারত এক্সপ্রেস (Vande Bharat Express)। তবে বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেনেই ভারতীয় রেলের অগ্রগতি থেমে যাচ্ছে না। বরং আগামী দিনে আসছে বুলেট ট্রেনের (Bullet Train) মতো আরও নতুন নতুন ট্রেন।

সম্প্রতি দেশে ৪০টি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস চালু হওয়ার পর এখন চালু হয়েছে দুটি গরিবের বন্দে ভারত অমৃত ভারত এক্সপ্রেস। অন্যদিকে খুব তাড়াতাড়ি বন্দে ভারতের নতুন ভার্সন অর্থাৎ বন্দে ভারত স্লিপার (Vande Bharat Sleeper) খুব তাড়াতাড়ি দেশের রেল ট্র্যাকে দৌড়াবে বলেই জানা যাচ্ছে। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো, বর্তমানে যেখানে রাজধানী এক্সপ্রেসকে দেশের অন্যতম প্রিমিয়াম ট্রেন হিসাবে ধরা হয় সেই ট্রেনও বন্দে ভারত স্লিপারের সামনে পিছনে পড়ে যাবে।

কেমন হতে চলেছে বন্দে ভারত স্লিপার, কেমন হবে এই ট্রেনের পরিষেবা, এসব এখন সরকারের গোপন ভান্ডারে লুকিয়ে থাকলেও তা এক আধিকারিক ফাঁস করেছেন। আর সেই আধিকারিকের থেকেই বন্দে ভারত স্লিপারের বিভিন্ন খুঁটিনাটি সামনে এসেছে। তার থেকেই জানা গিয়েছে, রাজধানী এক্সপ্রেসের মত ট্রেনকেও গতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন দিক দিয়ে পিছনে ফেলে দেবে বন্দে ভারত স্লিপার।

আরও পড়ুন 👉 Vande Bharat Express: বন্দে ভারতের পথ আটকানোর দিন শেষ! হাওড়া নিউ জলপাইগুড়ি রুটে দারুণ উদ্যোগ নিল রেল

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই আধিকারিক থেকে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই বন্দে ভারত স্লিপারের প্রোটোটাইপ তৈরি হয়ে গিয়েছে। দ্রুত গতিতে চলছে বন্দে ভারত স্লিপার তৈরির কাজ। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে মার্চ মাসের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে বন্দে ভারতের নতুন ভার্সন বন্দে ভারত স্লিপার। আর তারপরই শুরু হবে ট্রায়াল রান। একটি দুটি রুট নয়, দেশের বিভিন্ন রুটে এই ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে রেলের।

ট্রায়াল রান হওয়ার পর কিছু রুটে বন্দে ভারতের এই ভার্সন চালু হয়ে গেলেও পুরোদমে দেশে বন্দে ভারত স্লিপার চালু হতে আরও অনেকটাই সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন তিনি। পুরো দেশে পুরোদমে বন্দে ভারত স্লিপার চালু হতে ২০২৫ সালের শেষভাগ পর্যন্ত লাগতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি এই ট্রেনের গতিবেগ এতটাই বেশি থাকবে যে রাজধানী সহ অন্যান্য প্রিমিয়াম ট্রেনের থেকে দু’ঘণ্টা আগেই গন্তব্যে পৌঁছে যাবেন যাত্রীরা।