রাজ্যের প্রথম লোকাল ট্রেনের ফার্স্ট ক্লাস কামরার টিকিট ভাড়া কত! না জানলেই নয়

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : ভারতীয়দের পরিবহনের মেরুদন্ড ভারতীয় রেল (Indian Railways) বছরের বিভিন্ন সময় নতুন নতুন উপহার দিয়ে থাকে দেশবাসীকে। কখনো বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের (Vande Bharat Express) মত প্রিমিয়াম ট্রেন, আবার কখনো বিভিন্ন রুটে নতুন নতুন ট্রেন। ঠিক সেই রকমই এবার পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দারা পেতে চলেছেন লোকাল ট্রেনের (Local Train) ফার্স্ট ক্লাস কামরা।

এর আগে কখনো পশ্চিমবঙ্গের কোন রুটের লোকাল ট্রেনে ফার্স্ট ক্লাস কামরা দেখা যায় নি। তবে এবার সেই ফার্স্ট ক্লাস কামরা লাগতে চলেছে একটি লোকাল ট্রেনে। আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে রানাঘাট শিয়ালদা রানাঘাট লোকাল ট্রেনটিতে এই ফার্স্ট ক্লাস কামরা লাগানো হবে। পরে যদি তা সফল হয় তাহলে অন্যান্য একাধিক রুটের লোকাল ট্রেনে যুক্ত করা হবে এই ধরনের ফার্স্ট ক্লাস কামরা।

দেবীপক্ষের সূচনার দিন অর্থাৎ ১৪ অক্টোবর রাজ্যে প্রথম ফার্স্ট ক্লাস কামরা নিয়ে রানাঘাট শিয়ালদা রানাঘাট লোকাল ছুটতে শুরু করবে। এই ফার্স্ট ক্লাস কামরার বসার সিটগুলি হবে আরামদায়ক সোফার মত। এছাড়াও মেঝেতে থাকবে কার্পেট। পাশাপাশি কামরার সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার জন্য এবং মহিলা ও মাতৃ শক্তিকে শ্রদ্ধা জানাতে নানান ধরনের স্থানীয় শিল্পকলা তুলে ধরা হবে। লোকাল ট্রেনের এই ফাস্ট ক্লাস কামরা নিয়ে এখন সবার মধ্যেই শুরু হয়েছে জোড় কৌতুহল।

তবে এর পাশাপাশি প্রশ্ন উঠছে এই ফার্স্ট ক্লাস কামরার যাত্রীদের টিকিটের পিছনে কত টাকা গুনতে হবে? সাধারণ কামরার মত তো আর টিকিটের ভাড়া থাকবে না। ফার্স্ট ক্লাস কামরা দিয়ে লোকাল ট্রেন চালু হওয়ার আগে এখনো পর্যন্ত যা জানা যাচ্ছে তা হলো, এই সকল কামরার যাত্রীদের অন্যান্য কামরার যাত্রীদের তুলনায় দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ বেশি ভাড়া দিতে হবে। যদিও এই নিয়ে রেলের তরফ থেকে এখনো পর্যন্ত অফিসিয়ালি কিছু জানানো হয়নি। তবে ট্রেনের ভাড়া নিয়ে এখন থেকেই খুব শুরু হয়েছে মহিলাদের একাংশের মধ্যে।

স্পেশাল কোচের ভাড়া নিয়ে পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে এমন নানান দাবি করা হচ্ছে এবং তা নিয়ে ক্ষোভ উগরেও দেওয়া হচ্ছে। জানা যাচ্ছে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের তরফ থেকে হাওড়া খড়গপুর শাখায় এই ধরনের কোচ চালাতো। সেক্ষেত্রে ভুল করে কামরায় উঠে যাওয়া থেকে শুরু করে নানান ধরনের সমস্যা তৈরি হতো। ঝামেলার জন্য শেষ পর্যন্ত সেই কামরা তুলে দেওয়া হয়। যদিও ভাড়ার বিষয়ে এখন হিসেব নিকেশ এবং আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছেন পূর্ব রেলের মুখ্য সংযোগ আধিকারিক কৌশিক মিত্র।