বিজ্ঞাপন

নিষিদ্ধ শব্দবাজি ফাটালে লাখ টাকার জরিমানা, হতে পারে জেল, ঘোষণা পর্ষদ ও পুলিশের

বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদন : সামনেই কালীপুজো। পুজো উপলক্ষে বাজি ফাটানোর তোড়জোড় পড়ে যাই মানুষদের মধ্যে। তবে তালিকায় রয়েছে বেশকিছু শব্দবাজি যেগুলি ফাটালে পরিবেশ দূষিত হয় শব্দদূষণের কারণে। বারংবার পুলিশ এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তরফ থেকে সচেতনতা বার্তা দিয়েও যখন সেভাবে সফলতা আসেনি তখন কড়া পথে হাঁটতে শুরু করে তারা। পরিবেশ বাঁচাতে তাদের এমন পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

নিষিদ্ধ শব্দবাজি ফাটালে হতে পারে ৫০০০ টাকা থেকে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা। শুধু তাই নয়, হতে পারে ৫ বছরের জেলও। রবিবার কড়া ভাষাতেই একথা জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ ও পুলিশ। রবিবার শহরের বেশ কয়েকটি বড় বড় আবাসনের প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠকের পর এ কথা জানায় তারা। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা, ব্যারাকপুর, হাওড়া ও বিধান নগরের পুলিশ কমিশনারেটের সদস্যরা।

বিজ্ঞাপন

দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এবছর থেকে পর্ষদ এনভারমেন্ট প্রটেকশন অ্যাক্ট ১৯৮৬-র ১৫ নাম্বার ধারা কঠোরভাবে প্রয়োগ করবে। নিষিদ্ধ শব্দ বাজি ফাটানো রুখতে কালীপুজোর দিন ড্রোন ওড়াতে পারে পুলিশ ও পর্ষদ। প্রমাণের অভাবে প্রতি বছর নিষিদ্ধ শব্দ বাজি ফাটানোয় অভিযুক্তরা ছাড় পেয়ে যায়। কিন্তু এবছর সেসব ক্ষেত্রে কোন রকম ত্রুটি রাখতে চাইছে না পর্ষদ ও পুলিশ।