বিজ্ঞাপন

Half Pay Leave: বদলে গেল রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ছুটির! না জানলে হাফ বেতনে চালাতে হবে সংসার

বিজ্ঞাপন

There is going to be a change in the leave rules of the state government employees: পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মচারীদের ছুটি নেওয়ার ব্যবস্থা বছরের পর বছর পরিবর্তন হতে থাকে। বহুদিন ধরে এই রাজ্যে চলে আসছে সরকারি কর্মচারীদের অর্ধ বেতন ছুটির ব্যবস্থা (Half Pay Leave)। বিভিন্ন বিষয়ে তারা ছুটি পেয়ে থাকে যেমন, পুজো পার্বণ রয়েছে তার পাশাপাশি আছে ক্যাজুয়াল লিভ, নিজস্ব ছুটি ইত্যাদি। এর সাথে কিন্তু রয়েছে অর্ধ বেতন ছুটির ব্যবস্থা। আজকের প্রতিবেদনে এই অর্ধ বেতন ছুটির ব্যবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

যেকোনো সরকারি কর্মচারীরা ব্যক্তিগত প্রয়োজন কিংবা শারীরিক অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন করতে পারে। যদি তার চাকরির এক বছর পূর্ণ হয়ে থাকে তাহলে সে কুড়ি দিনের অর্ধ বেতন ছুটির (Half Pay Leave) জন্য আবেদন করতে পারে। এই ছুটিটি দুবারে বিভক্ত হবে। অর্থাৎ এক বছরের মেয়াদ পূর্ণ হল জানুয়ারি মাসে সেই সরকারি কর্মচারী ছুটির জন্য আবেদন করতে পারেন, দশ দিনের অর্ধ বেতন তার অ্যাকাউন্টে ১লা জানুয়ারি জমা করা হবে। আবার ধরুন সেই ব্যক্তি বাকি ১০ দিনের ছুটি জুলাই মাসে নিতে পারে। অর্থাৎ ২০ দিনের ছুটির মেয়াদ দুটো ভাগে বিভক্ত হবে এরকম ভাবে। কিন্তু এর থেকে বেশি দিন ছুটি মুকুট করা হবে কিনা এ বিষয়ে রাজ্য সরকার এখনো পর্যন্ত কোনো বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নি।

বিজ্ঞাপন

এবার নিশ্চয়ই জানতে ইচ্ছে করবে কিভাবে পাওয়া যাবে এই টাকা? একজন সরকারি কর্মচারী তার অর্ধেক ছুটির জন্য অর্ধেক বেতন (Half Pay Leave) পেয়ে থাকেন। ধরুন কোনও সরকারি কর্মী কোনও মাসের ১০ তারিখ ছুটির জন্য আবেদন করেছেন, তাহলে আগের দিন ৯ তারিখ অর্ধেক বেতন পাবেন। এরফলে তিনি যে পরিমাণ বেতন অগ্রিম পাচ্ছেন, সেই পরিমাণ বেতনের অর্ধেক পরিমাণ স্বরূপ মহার্ঘ ভাতা পাবেন। এবং সেটির বাকি অর্ধেক বেতনের পরিমাণ স্বরূপ তিনি পাবেন চিকিৎসা ভাতা এবং বাড়ি ভাড়ার খরচ সমূহ।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু সেই ব্যক্তিকে ২০ দিনের ছুটির হিসাব করেই এগোতে হবে এবং পাশাপাশি আরো কিছু ছুটি সে অর্ধ বেতন ছুটির মাধ্যমে নিতে পারে। কিন্তু ক্যাজুয়াল লিভ এর মধ্যে পড়ে না, এটি বাদে আপনি যেকোনো ছুটি অর্ধ বেতন ছুটির (Half Pay Leave) মাধ্যমে নিতে পারেন। এবার আমাদের জেনে নিতে হবে ক্যাজুয়াল লিভ নেওয়ার নিয়ম।

যদি কোন সরকারি কর্মচারীর হঠাৎ ছুটির প্রয়োজন হয় সে ক্যাজুয়াল লিভ নিতে পারে। এক বছরে ১৪টি ক্যাজুয়ালি নেওয়া যেতে পারে কিন্তু টানা ৫ দিনের বেশি নেওয়া যাবে না। ধরুন আপনি সোমবার ছুটি নিলেন আপনাকে যেকোনোভাবে শনিবার অফিসে জয়েন করতেই হবে। ক্যাজুয়াল লিভ নেওয়া সময় তার মাঝে যদি সাপ্তাহিক ছুটি বা অন্য কোন ছুটি পড়ে তাহলে সেটা ধরা হয় না। কোন ব্যক্তি যদি শুক্রবার ছুটি নিয়ে মঙ্গলবার জয়েন করে, তাহলে তার শুধুমাত্র শুক্র, শনি এবং সোমবারের ছুটিই ধরা হবে। কিন্তু অন্য কোন ছুটির ক্ষেত্রে সেটা হবে না, বরং টানা ছুটির মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি কিংবা সরকারী ছুটি পড়লে সেটাও গণনা করা হবে।