Smart Didi Nandini: ভাইরাল ‘স্মার্টদিদি’ নন্দিনী এবার নতুন ভূমিকায়, জানলে আপনিও অবাক হবেন

Prosun Kanti Das

Published on:

Viral “Smart didi” Nandini is in a new role: এই ডিজিটাল যুগে প্রায়ই কেউ না কেউ ভাইরাল হচ্ছে। কখনো নিজেদের প্রতিভা দেখিয়ে আবার কখনো কোনো অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়ে। সম্প্রতি নেট দুনিয়ার দৌলতে যিনি বেশ ভাইরাল তিনি হলেন সবার প্রিয় নন্দিনী দিদি (Smart Didi Nandini)। যার আসল নাম হলো মমতা গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু ডালহৌসি চত্বরে এবং নেট জগতে তিনি নন্দিনী দিদি বলেই বেশি পরিচিত। তিনি আবারও চলে এসেছেন খবরের শিরোনামে। তার ভিডিও দেখার জন্য সবাই বেশ আগ্রহের সাথে অপেক্ষা করে।

স্মার্টফোনের দৌলতে সবাই এতদিনে জেনে গেছেন যে, অফিস পাড়ায় বাবা মায়ের সঙ্গে একটি পাইস হোটেল চালান নন্দিনী দিদি (Smart Didi Nandini)। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে তিনি খুবই ভাইরাল। কিন্তু বিগত দু বছর ধরে ওই এলাকায় ভাতের হোটেলের ব্যবসা করছেন তিনি। তার দোকানে আগে দিনে ২০-৩০ জন লোক হত, বর্তমানে সেই সংখ্যা প্রায় ১০০-র কাছাকাছি দাঁড়িয়েছে। কি এমন কাণ্ড ঘটলো যার জন্য এভাবে ভাইরাল হলেন দিদি?

মানুষ যখন জনপ্রিয় হয় তার পিছনে ভালো এবং খারাপ দুটো বিষয়ই লুকিয়ে থাকে। তিনি (Smart Didi Nandini) জনপ্রিয় হয়েছেন মানুষের মধ্যে আবার সমালোচনার শিকারও হয়েছেন। প্রশংসা ও নিন্দা একই মুদ্রার দুই পিঠ। মানুষ যেমন তাকে আপন করে নিয়েছে তেমনি আবার বহু বিষয় নিয়ে সমালোচনা করেছে। কিন্তু তাকে দমাতে পারেনি কেউ।

তিনি বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার পরিচিত মুখ ‘স্মার্ট দিদি’ নন্দিনী (Smart Didi Nandini)। ডালহৌসি চত্বরে কয়লা ঘাটের কাছে তাঁর বাবার একটি পাইস হোটেলে তিনি দিব্যি ব্যবসা করছেন। বাবা-মায়ের সঙ্গে দোকানে থাকেন এবং রান্না-বান্না থেকে শুরু করে ক্রেতাদের খাবার পরিবেশন করা সবকিছুতেই তিনি একাই একশো। তাঁকে নিয়ে এত বিতর্ক হলেও সবকিছুর পরেও তাঁর প্রতি তাঁর অনুরাগীদের ভালবাসা একটুও কমেনি। কি ভাবছেন শুধু ভাতের হোটেল চালিয়ে এই নামডাক? সেটা তো ঠিক কিন্তু তার সঙ্গে ইউটিউব জগতেও তিনি বাজিমাত করলেন।

করোনার সময়ে তিনি যোগ্য মেয়ের মতোই বাবার পাশে এসে দাঁড়ান। নিজের কাঁধে তুলে নেন বাবা-মায়ের পাইস হোটেলের সব দায়িত্ব। শুরু হয় তাদের লড়াইয়ের নতুন গল্প। একদিন এক ব্লগার তাকে তুলে ধরেন স্যোশাল মিডিয়ায়। সেখান থেকেই তিনি ভাইরাল হয়ে যান এবং পরিচয় পান ‘স্মার্ট দিদি’ নন্দিনী হিসাবে। প্রচুর ব্লগারের ভিড় লেগে থাকে তার দোকানের সামনে। স্যোশাল মিডিয়ায় আজকাল তিনি বেশ জনপ্রিয়। গ্রাহকদের নিজের হাতে কখনো পরিবেশন করছেন পোলাও মাংস আবার কখনো মাছ ভাত।