কোমডের ভিতর ১২ ফুটের পাইথন, ৩:১৩ সেকেন্ডের লড়াইয়ে কোমড ভেঙে উদ্ধার

Shyamali Das

Published on:

নিজস্ব প্রতিবেদন : সাপের ভয় নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। অধিকাংশ মানুষই সাপ দেখলে ভয়ে কঁকিয়ে ওঠেন। তবে সব সাপ যে বিষাক্ত হয় তা নয়, বিশ্বের অধিকাংশ সাপই রয়েছে যারা নির্বিশ। কিন্তু তাহলেও সাপ দেখলেই মানুষের রক্ত ঠান্ডা হয়ে যায়। এখন ভাবুন তো যদি আপনার বাড়িতে কোমডের ভিতর থেকে কোন পাইথন (Python) উঁকি মারে তাহলে কি পরিস্থিতি হয়ে দাঁড়াতে পারে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই রকমই একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে এবং যে ভিডিওটি দেখে যে কারো হাত পা ঠান্ডা হয়ে যেতে পারে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওটিতে দেখানো হয়েছে কিভাবে সাপটি কোমডের ভিতর থেকে উঁকি মারছে এবং কিভাবে ৩:১৩ মিনিটের রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। যদিও ওই সাপটিকে উদ্ধার করার জন্য কোমড পর্যন্ত ভাঙতে হয়।

কোমডের ভিতর ১২ ফুটের পাইথন ঢুকে যাওয়ার ঘটনাটি অবশ্য ভারতে কোথাও ঘটেনি। এমন ঘটনাটি ঘটেছে থাইল্যান্ডে। সেখান কার বাসিন্দা সুবি পরমাস নামে এক মহিলার বাড়িতে এমন ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ওই মহিলা খবর দেন সর্প বিশেষজ্ঞদের এবং তাদের দুজন এসে দীর্ঘক্ষণের প্রচেষ্টায় শেষমেষ ওই পাইথনটিকে উদ্ধার করে জঙ্গলে নিরাপদ জায়গায় পুনর্বাসন দেন। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর বিশ্বের যারাই এই ভিডিও দেখেছেন তারাই রীতিমতো হতচকিত হয়ে পড়েছেন।

থাইল্যান্ডের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের তরফ থেকে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যে তথ্য প্রদান করা হয়েছে তাতে জানানো হয়েছে, সামুত প্রাকান শহরের বাসিন্দা ওই মহিলা রাতে খাওয়া দাওয়ার পর টয়লেট যান। তিনি যখন হাত ধুচ্ছিলেন তখন দেখতে পান কমোডের ভিতর ওই পাইথনটি মুখ বের করে রয়েছে। পাইথনটি এইভাবে থাকতে দেখে তিনি প্রথমে হতচকিত হয়ে পড়েন এবং চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। এরপরই তার স্বামী উদ্ধারকারী দলকে খবর দেন।

পাইথনটি কোনভাবে আউটলেট দিয়ে ভেতরে ঢুকে পড়েছিল এবং সে বেরোনোর চেষ্টা করার জন্য কোমডের ভিতরের ছোট ছিদ্র দিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তার শরীর এতটাই বড় ছিল যে কেবলমাত্র মুখটুকু বেরিয়ে আটকে যায়। এই পরিস্থিতিতে যারা উদ্ধার করতে এসেছিলেন তারাও বুঝতে পারেন পাইথনটি বড় এবং তাকে উদ্ধার করতে হলে কমোড ভাঙতে হবে। সেই মতো তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করেন এবং পাইথনটিকে উদ্ধার করে নিরাপদ জায়গায় পুনর্বাসন দেন।