Bhawani Mandi Rail Station: ট্রেন দাঁড়ালে ইঞ্জিন থাকে এক রাজ্যে, শেষটা পড়ে অন্য রাজ্যে! দেশেই রয়েছে এমন আজব স্টেশন

Bhawani Mandi Rail Station is located in the middle of these two states: বৈচিত্র্যময়ের দেশ বলা হয় ভারতকে। অর্থনৈতিক, প্রাকৃতিক, সংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সর্বদিক থেকেই বৈচিত্র্যতা পরিলক্ষিত হয় ভারতবর্ষে। এই বৈচিত্রতার পাশাপাশি এদেশে এমন কিছু কিছু দৃশ্য বা ঘটনা রয়েছে যা অবিশ্বাস্যকর। তেমনি একটি অদ্ভুত দৃশ্য হলো ভবানী মান্ডি রেল স্টেশনের (Bhawani Mandi Rail Station) দৃশ্য। যে রেল স্টেশনটি রয়েছে দুই রাজ্যজুড়ে বিস্তৃত। রেলের ইঞ্জিন অবস্থান করে এক রাজ্যে এবং গার্ডের কোচ অবস্থান করে আরেক রাজ্যে। বিশ্বাসযোগ্য না হলেও এটাই সত্যি। যে কারণে দেশের এই অভিনব স্টেশনের সাথে জড়িত রয়েছে নানান বিষয়।

ভারতবর্ষের নানান জায়গায় নানান ধরনের অভিনব দৃশ্য চোখে পড়ে। তার মধ্যে রেলমন্ত্রকের তরফে তুলে ধরা এই অভিনব ভবানী মান্ডি রেল স্টেশনের (Bhawani Mandi Rail Station) দৃশ্য নজর কেড়েছে সকলের। যে রেল স্টেশনটি অবস্থিত রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশ দুই রাজ্যের মধ্যস্থলে। শুধু রেলস্টেশন নয়, শুনলে অবাক হবেন এই ভবানী মান্ডি রেল স্টেশন চত্বরের নিকটে অবস্থিত বেশ কিছু বাড়ি রয়েছে। যে বাড়িগুলির প্রধান দরজা অবস্থান করে মধ্যপ্রদেশে এবং উঠোন বা পিছনের দিকের দরজা অবস্থান করে রাজস্থানে।

দিল্লি-মুম্বাই রেল রুটে অবস্থিত এই স্টেশন। যা দুই রাজ্যের সীমান্তের মধ্য দিয়ে বাহিত হয়। যার ফলে এই অভিনব রেল স্টেশনটি রাজস্থান-মধ্যপ্রদেশ দুই রাজ্যের মধ্যেই পড়ে। ট্রেন থামলে রাজস্থানের ঝালোয়ারের দিকে চলে যায় ট্রেনের ইঞ্জিন। অপরদিকে মধ্যপ্রদেশের সীমান্তের ভিতর প্রবেশ করে গার্ডের কোচ। শুধু তাই না, এই রেল স্টেশনের বোর্ডেও লেখা থাকে দুই রাজ্যের নাম। এক প্রান্তে থাকে রাজস্থান তার অপর প্রান্তে থাকে মধ্যপ্রদেশ। তবে দুই রাজ্য জুড়ে বিস্তৃত হলেও এই স্টেশনে মধ্যপ্রদেশের ব্যক্তিরা মধ্যপ্রদেশ প্রান্ত থেকে টিকিট কাটতে পারবেন না। তাদেরকে রাজস্থানের প্রান্তে এসে টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট কাটতে হয়।

আরও পড়ুন 👉 Indian Railways New Rules: বদলে গেল নিয়ম, এবার স্টেশনে এই কাজ করলেই জেল, আটকাতে পারবেনা কেউ

সাম্প্রতিক টুইটার হ্যান্ডেলে এই অভিনব ভবানী মান্ডি রেল স্টেশনের (Bhawani Mandi Rail Station) কথা জানিয়েছেন রেল মন্ত্রক। সাথে জুড়ে দিয়েছেন এই স্টেশনের একটি ভিডিও। যা অফিশিয়াল পেজে শেয়ার করা হয়েছে। শোনা যায় এই রেলস্টেশনকে ঘিরে ২০১৮ সালে একটি সিনেমাও তৈরি করা হয়। যেখানে মজার ছলে প্রতিস্থাপন করা হয় স্টেশন চত্বরকে।

এই অভিনব রেলস্টেশনের সাথে মজার বিষয় জড়িত থাকলেও কিছু সমস্যাও যুক্ত রয়েছে। দুই রাজ্যের মাঝখানে অবস্থান করায় অনেক অপকর্ম ঘটে এই স্থানে। বিশেষ করে মাদক পাচারকারীরা বেশিরভাগ সময়ই দুই রাজ্য জুড়ে বিস্তৃত স্টেশন চত্বরকে কাজে লাগিয়ে সহজেই অপরাধমূলক কাজ করে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে পলায়ন হয়। যার ফলে তাদেরকে খুঁজে বের করা দুষ্কর হয়ে ওঠে পুলিশকর্মীদের।