HS Exam 2024 New Rules: উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার নিয়মে বদল, এবার পরীক্ষার্থীরা এই কাজ না করলেই বাতিল হবে খাতা

নিজস্ব প্রতিবেদন : গত ২ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২৪ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে এবং সেই পরীক্ষা শেষ হওয়ার মুখে। মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হওয়া এবং সরস্বতী পুজোর একদিন পরেই এই বছর আবার শুরু হয়ে যাবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা (HS Exam 2024)। মাধ্যমিক পরীক্ষায় এবার হাজার কড়াকড়ি করেও প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার ঘটনা সামনে আসতে দেখা গিয়েছে। যে কারণে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় যেন এমন ঘটনা না ঘটে তার জন্য পরীক্ষার নিয়মে বড় বদল (HS Exam 2024 New Rules) আনল সংসদ।

মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার বিষয়টি মাথায় রেখে সংসদের তরফ থেকে কিভাবে কোনরকম এই ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটিয়েই পরীক্ষা সমাপ্ত করা যায় তা নিয়ে রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মুখে। তবে তাদের তরফ থেকে এই চ্যালেঞ্জের মোকাবিলায় নতুন একটি নিয়ম জারি করা হয়েছে। নতুন সেই নিয়মের বিষয়ে যা জানা গিয়েছে তাতে, সংসদের তরফ থেকে নির্দিষ্ট করে দেওয়া একটি কাজ পরীক্ষার্থীরা না করলে খাতা বাতিল হয়ে যাবে।

মাধ্যমিক পরীক্ষায় এত কড়াকড়ি করেও যখন প্রশ্নপত্র ফাঁস রুখে দেওয়া যায়নি, সেই সময় সংসদের তরফ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য একটি করে নির্দিষ্ট নম্বর ব্যবহার করা হবে। যে নম্বর প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর জন্য আলাদা আলাদা হবে। এই ইউনিক নম্বর থাকবে প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর প্রশ্নপত্রে। যে ইউনিক নম্বর পরীক্ষার্থীদের অনেক কিছু চিহ্নিত করবে।

আরও পড়ুন 👉 New Rules for Examination: চাকরির পরীক্ষার নিয়মে বদল! এবার টুকলি করলে বরবাদ হয়ে যাবে জীবন

সংসদের তরফ থেকে যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, পরীক্ষার্থীরা দেখতে পাবেন তাদের যখন প্রশ্নপত্র দেওয়া হবে তখন সেই প্রশ্নপত্রের মধ্যে ওই ইউনিক নম্বরটি থাকবে। যে ইউনিক নম্বর অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের পাশাপাশি তার পাশে বসে থাকা পরীক্ষার্থীর সঙ্গেও কোনরকম ম্যাচ করবে না। এবার পরীক্ষার্থীরা যখন উত্তরপত্রে নিজেদের নাম লিখবেন তখন সেখানেই ওই ইউনিক নম্বর লিখতে হবে। ইউনিক নম্বর সঠিকভাবে লিখতে হবে। যদি কোথাও কোন ভুল হয় তাহলে পুনরায় আবার সেই ইউনিক নম্বর লিখতে হবে। যাতে করে কোনভাবেই খামতি না থাকে।

এখন যদি কোন প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় তাহলে এই ইউনিক নম্বর বলে দেবে কোন পরীক্ষার্থীর থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। ফলে এমন ঘটনা ঘটলে ওই পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সংসদ। এছাড়াও এই ধরনের ইউনিক নম্বর ব্যবহার করলে আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ কিছু সুবিধা পাওয়া যাবে পরীক্ষার্থী থেকে শুরু করে সংসদের তরফ থেকে। সুতরাং এক ইউনিক নম্বরেই একাধিক সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করা হচ্ছে।