Bee Man: আয়রন ম্যান, স্পাইডার ম্যানের এবার খোঁজ মিলল বিম্যানের! তাও আবার বাংলাতেই

Not Spider-Man or Iron Man this time Beeman was found in West Bengal: মানুষকে যেমন সহজেই বশ করা যায় তেমন মৌমাছিদের বশ করাও জলভাত এমনটাই দেখিয়ে দিলেন বাঁকুড়ার এক মধু প্রস্তুতকারক। শুনতে অবাক লাগলেও এ কথাই সত্যি। তার পেটের মধ্যে বাসা বেঁধেছে এক থোক মৌমাছি। এই অদ্ভুত কাণ্ড অবাক করেছে সকলকে। এমনকি ব্যক্তিটির সারা গায়ে ছেয়ে গেছে মৌমাছি। তার সাথে শেষমেষ কি হলো নিশ্চয়ই আপনার জানতে ইচ্ছা করছে? সাধারণ মানুষের একটা মৌমাছির কামড় খেলে প্রাণ ওষ্ঠাগত হয়ে ওঠে, এমনকি মৌমাছির ভয়ে হাতি থেকে শুরু করে জঙ্গলের রাজা সিংহ সবাই সিধে হয়ে যায়। কিন্তু এই মৌমাছিকে কোনো দৈব বলে বশ মানিয়ে রেখেছেন বাঁকুড়ার মধু প্রস্তুতকারক (Bee Man)।

রুপোলি পর্দায় আমরা স্পাইডারম্যান, ব্যাটম্যান এরকম চরিত্রের সাথে পরিচিত হয়েছি অনেক আগেই। কিন্তু বাস্তবের বিম্যান সত্যিই বড় দুর্লভ। চট করে শুনলে হয়তো কেউই বিশ্বাস করতে পারবে না কিন্তু একথা একেবারে সত্যি। মৌমাছিদের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব দেখতে পাওয়া যায় না সচরাচর। সুপারহিরো বাঁকুড়ার “বিম্যান” (Bee Man) অর্থাৎ মৌমাছি মানব সুখ মহম্মদ।

সুখ মহম্মদ হলেন বাঁকুড়া জেলার ওন্দা ব্লকের চিঙ্গানি গ্রামের বাসিন্দা যিনি এক দশকের বেশি সময় ধরে ভেঙে আসছেন মৌমাছির চাক। শুধু বাঁকুড়াতে নয় গোটা রাজ্যে তিনি ‘বিম্যান’ (Bee Man) নামেই পরিচিত। বিশ্ববিদ্যালয় হোক কিংবা বাড়ির সান সেটে, যেকোনো জায়গায় ভয়ানয় মৌমাছির চাক ভাঙতে সর্বদাই দূর দূরান্ত থেকে ডাক আসে সুখ মহম্মদের। অবাক করা ঘটনা হলো তিনি এখন অব্দি ৪৫০ বন মৌমাছির কামড় সহ্য করতে পারেন।

আরও পড়ুন 👉 West Bengal tourism packages: টাকা দিলেই শান্তি! থাকা, খাওয়া, ঘোরা সব হবে নিশ্চিন্তে, ঝামেলামুক্ত প্যাকেজ আনল পরিবহন দপ্তর

বাঁকুড়া সম্মিলনী কলেজের ছাত্র ছাত্রীদের একটি বিশেষ পাঠ দেওয়ার জন্য পেটের মধ্যে অসংখ্য মৌমাছি নিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেন তিনি। মৌমাছি চাষ অর্থাৎ এপিকালচার সম্পর্কে জ্ঞান দিতে গিয়ে এই অদ্ভুত কান্ড ঘটিয়েছেন তিনি। ছাত্র ছাত্রী বাদেও বাচ্চারা এই দৃশ্য দেখে রীতিমতো উচ্ছাস শুরু করে দেয়। সুখ মহম্মদ জানান, বাঁকুড়াতে সাধারণত ইউক্যালিপটাস, পলাশ এবং তিলের মধু পাওয়া যায়। যার মধ্যে ইউক্যালিপটাস মধুর চাহিদা কিন্তু সবথেকে বেশি। মৌমাছির সঙ্গে তার বন্ধুত্ব সত্যিই অটুট।

পরিবেশে মৌমাছির ভূমিকা কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মৌমাছির জন্যই কৃষির উন্নয়ন হতে পারে এমনটাই বললেন বাঁকুড়ার সুখ মহম্মদ (Bee Man)। তিনি দাবী করেছেন বাঁকুড়ার মধুর গুনগত মান আর ঘনত্ব খুব উৎকৃষ্ট। বাঁকুড়ার সুখ মহম্মদের মৌমাছি এবং মধুর সঙ্গে যেনো আত্মার সম্পর্ক। এটাই সুখ মোহাম্মদকে বাঁকুড়ার মৌমাছি মানব বলে সুপ্রতিষ্ঠিত করে তুলেছে।