বন্ধ হয়ে গেল তারাপীঠ মন্দির, ভিডিও কলেই তারা মায়ের দর্শন

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে আংশিক লকডাউনের পর কার্যত পূর্ণ লকডাউনের পথে হাঁটলো রাজ্য সরকার। রবিবার থেকে ৩০ মে পর্যন্ত রাজ্যে কড়াকড়ি করা হলো কোভিড আচরণ বিধি। জরুরী পরিষেবা ছাড়া যানবাহন থেকে দোকানপাট সমস্ত কিছু বন্ধ থাকবে এই সময়। আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে তারাপীঠ মন্দির কমিটির সিদ্ধান্ত নিলো, সংক্রমণ এড়াতে আপাতত আগামী ৩০ মে পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য বন্ধ থাকবে তারাপীঠ মন্দির।

তারাপীঠ মন্দির কমিটির তরফ থেকে শনিবার রাতে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে, “সরকারি নিয়মকে মান্যতা দিয়ে ১৬ মে থেকে ৩০ মে পর্যন্ত মন্দির বন্ধ থাকবে। এই সময় কোন স্থানীয় অথবা বাইরে থেকে আসা দর্শনার্থীরা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন না। কেবলমাত্র তারা মায়ের পুজোর সাথে যে সকল সেবাইতরা নিযুক্ত কেবল তারাই প্রবেশ করতে পারবেন।” মন্দির কমিটির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, রাজ্য সরকার যদি লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়ায় সে ক্ষেত্রে মন্দির বন্ধ রাখার সময়সীমা বাড়ানো হতে পারে। তা পরে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তবে সশরীরে মন্দিরে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও ভক্তরা যাতে তারা মায়ের দর্শন থেকে বিরত না থাকেন তার জন্য মন্দির কমিটির তরফ থেকে ভিডিও কলের মাধ্যমে তারা মায়ের দর্শনের ব্যবস্থা শুরু করলো। মন্দিরের সেবায়েতদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এই লকডাউন চলাকালীন পূণ্যার্থীদের দাবি মেনে ভিডিও কলের মাধ্যমে গোত্র ধরে পূজো এবং তারা মায়ের দর্শন করানোর ব্যবস্থা রাখা হবে যাতে পুণ্যার্থীরা তারা মায়ের দর্শন এবং পুজো থেকে বিরত না হন। অন্যদিকে মন্দির কমিটির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, তারা মায়ের পুজোর ক্ষেত্রে নিয়মমাফিক নিত্য সেবা এবং নিত্য পুজো চলবে। এক্ষেত্রে কোনো রকম হেরফের হবে না।

আরও পড়ুন :

প্রসঙ্গত, দেশে করোনার প্রথম ঢেউ ছড়িয়ে পড়ার সময় এই তারাপীঠ মন্দির কমিটি প্রথম সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সংক্রমণ ঠেকাতে মন্দির বন্ধ রাখা হবে। এরপর দীর্ঘ সময়ে মন্দির বন্ধ থাকে। পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মন্দিরের দরজা পুনরায় দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। আর এবার করোনা দ্বিতীয় ঢেউয়ে এই প্রথম মন্দির কমিটির মন্দিরের দরজা সর্বসাধারণের জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলো।